নেত্রকোনা ০৯:৫০ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

চুলকিয়ে ঘা অথবা থুতু গেলার গল্প

  • আপডেট : ০৬:৪৮:২০ অপরাহ্ন, সোমবার, ১২ ডিসেম্বর ২০২২
  • ১১৫৯ বার পঠিত

মাথায় এতদিন একটা বালুর বস্তা নিয়ে হাঁটছিলাম।
আজ নেমে গেল। আমার বউ চলে গেছে বাপের বাড়ি,
মানে ডিভোর্সের প্রস্তুতি…

ক্লাস নাইনে পড়তে আমার বন্ধু চুন্নু, যে এখন
হনুমান তলায় লেপ-তোষকের দোকানদার, বলেছিল-
“ভালো পুটকি চুলকিয়ে ঘা বানাইস না।”

আমি সেই থেকে অকারণে মানুষকে খুঁচিয়ে
কথা বলা বাদ দিয়েছি। কিন্তু আমার বউ চলে গেছে…
প্রেম করে বিয়ে কি না, আমার বাপে-মায় মানতে পারেনি। কারণে অকারনে
তাকে বাপ তুলে গালি দিত। বলতো- “ছোটলোক,
আনকালচার্ড, পরিবার থেকে শিক্ষা পায়নি।” – এই নিয়ে ঝগড়া।

দুদিন পরপর গড়বড় যাতে কম হয়, বউয়ের কতো অপরাধ
ঢাকতে আমি কতো চিৎকার মুখ থেকে বের হওয়ার আগেই
পেটে চালান দিয়েছি।,

মনে হয়েছে প্রেম করে বিয়ে করা মানে
একটা বিশাল বালুর বস্তা মাথায় নিয়ে হাটা।,

ইন্টারমিডিয়েট ক্লাসে আমার বন্ধু হিমেল বলতো-
“থুতু একবার ফেলে দিয়ে সেটা মাটি থেকে চেটে তোলা অপমানকর। ”
আমি থুতু ফেলার আগে ভেবে ফেলতাম, চাটার হলে
মুখে থাকতেই গিলে নেওয়া ভালো।,

বউ বাপের বাড়ি চলে গেছে। বাপ-ভাইয়ের পরামর্শে
পিটিয়ে বিদায় করেছি।
মন কেন কাঁদে! তবে কি এখন আমাকে
মাটিতে ফেলা থুতু চেটে তুলতে হবে!!

কবি পরিচিতি:
আকিব শিকদার
শিকদার নিবাস
৮৪২/২ ফিসারি লিংক রোড
হারুয়া, কিশোরগঞ্জ।
Email : akibshikder333@gmail.com
Mobile : 01919848888
রচিত বই :
কাব্য গ্রন্থ : কবির বিধ্বস্ত কঙ্কাল (২০১৪), দেশদ্রোহীর অগ্নিদগ্ধ মুখ (২০১৫) কৃষ্ণপক্ষে যে দেয় উষ্ণ চুম্বন (২০১৬), জ্বালাই মশাল মানবমনে (২০১৮)।
শিশুতোষ : দোলনা দোলার কাব্য (২০২১)

আকিব শিকদার। জন্ম কিশোরগঞ্জ জেলার হোসেনপুর থানাধীন তারাপাশা গ্রামে, ০২ ডিসেম্বর ১৯৮৯ সালে। প্রফেসর আলহাজ মোঃ ইয়াকুব আলী শিকদার ও মোছাঃ নূরুন্নাহার বেগম এর জ্যেষ্ঠ সন্তান। স্নাতক পড়েছেন শান্ত-মরিয়ম ইউনিভার্সিটি থেকে ফ্যাশন ডিজাইন বিষয়ে। পাশাপাশি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতিতে স্নাতক ও স্নাতোকোত্তর। খন্ডকালীন শিক্ষকতা দিয়ে কর্মজীবন শুরু; বর্তমানে কর্মরত আছেন আইয়ূব-হেনা পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটে। ,

কবির বিধ্বস্ত কঙ্কাল (২০১৪), দেশদ্রোহীর অগ্নিদগ্ধ মুখ (২০১৫), কৃষ্ণপক্ষে যে দেয় উষ্ণ চুম্বন (২০১৬), জ্বালাই মশাল মানবমনে (২০১৮) তার উল্লেখযোগ্য কাব্যগ্রন্থ। দোলনা দোলার কাব্য (২০২১) তার শিশুতোষ কবিতার বই। ,

সাহিত্য চর্চায় উৎসাহ স্বরুপ পেয়েছেন “হো.সা.স. উদ্দীপনা সাহিত্য পদক”, “সমধারা সাহিত্য সম্মাননা”, “মেঠোপথ উদ্দীপনা পদক”, “পাপড়ি-করামত আলী সেরা লেখক সম্মাননা”। লেখালেখির পাশাপাশি সঙ্গীত ও চিত্রাংকন তার নেশা। ‘

আপনার মন্তব্য লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষণ করুন

প্রকাশক ও সম্পাদক সম্পর্কে-

শফিকুল আলম শাহীন

আমি একজন ওয়েব ডেভেলপার ও সাংবাদিক। আমি দৈনিক ইত্তেফাক পত্রিকায় পূর্বধলা উপজেলা সংবাদদাতা হিসেবে কর্মরত । সেইসাথে পূর্বকণ্ঠ অনলাইন প্রকাশনার সম্পাদক ও প্রকাশক। আমার বর্তমান ঠিকানা স্টেশন রোড, পূর্বধলা, নেত্রকোনা। আমি জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে ইতিবাচক। আমার ধর্ম ইসলাম। আমি করতে, দেখতে এবং অভিজ্ঞতা করতে পছন্দ করি এমন অনেক কিছু আছে। আমি আইটি সেক্টর নিয়ে বিভিন্ন এক্সপেরিমেন্ট করতে পছন্দ করি। যেমন ওয়েব পেজ তৈরি করা, বিভিন্ন অ্যাপ তৈরি করা, রেডিও স্টেশন তৈরি করা, অনলাইন সংবাদপত্র তৈরি করা ইত্যাদি। প্রয়োজনে: ০১৭১৩৫৭৩৫০২

চুলকিয়ে ঘা অথবা থুতু গেলার গল্প

আপডেট : ০৬:৪৮:২০ অপরাহ্ন, সোমবার, ১২ ডিসেম্বর ২০২২

মাথায় এতদিন একটা বালুর বস্তা নিয়ে হাঁটছিলাম।
আজ নেমে গেল। আমার বউ চলে গেছে বাপের বাড়ি,
মানে ডিভোর্সের প্রস্তুতি…

ক্লাস নাইনে পড়তে আমার বন্ধু চুন্নু, যে এখন
হনুমান তলায় লেপ-তোষকের দোকানদার, বলেছিল-
“ভালো পুটকি চুলকিয়ে ঘা বানাইস না।”

আমি সেই থেকে অকারণে মানুষকে খুঁচিয়ে
কথা বলা বাদ দিয়েছি। কিন্তু আমার বউ চলে গেছে…
প্রেম করে বিয়ে কি না, আমার বাপে-মায় মানতে পারেনি। কারণে অকারনে
তাকে বাপ তুলে গালি দিত। বলতো- “ছোটলোক,
আনকালচার্ড, পরিবার থেকে শিক্ষা পায়নি।” – এই নিয়ে ঝগড়া।

দুদিন পরপর গড়বড় যাতে কম হয়, বউয়ের কতো অপরাধ
ঢাকতে আমি কতো চিৎকার মুখ থেকে বের হওয়ার আগেই
পেটে চালান দিয়েছি।,

মনে হয়েছে প্রেম করে বিয়ে করা মানে
একটা বিশাল বালুর বস্তা মাথায় নিয়ে হাটা।,

ইন্টারমিডিয়েট ক্লাসে আমার বন্ধু হিমেল বলতো-
“থুতু একবার ফেলে দিয়ে সেটা মাটি থেকে চেটে তোলা অপমানকর। ”
আমি থুতু ফেলার আগে ভেবে ফেলতাম, চাটার হলে
মুখে থাকতেই গিলে নেওয়া ভালো।,

বউ বাপের বাড়ি চলে গেছে। বাপ-ভাইয়ের পরামর্শে
পিটিয়ে বিদায় করেছি।
মন কেন কাঁদে! তবে কি এখন আমাকে
মাটিতে ফেলা থুতু চেটে তুলতে হবে!!

কবি পরিচিতি:
আকিব শিকদার
শিকদার নিবাস
৮৪২/২ ফিসারি লিংক রোড
হারুয়া, কিশোরগঞ্জ।
Email : akibshikder333@gmail.com
Mobile : 01919848888
রচিত বই :
কাব্য গ্রন্থ : কবির বিধ্বস্ত কঙ্কাল (২০১৪), দেশদ্রোহীর অগ্নিদগ্ধ মুখ (২০১৫) কৃষ্ণপক্ষে যে দেয় উষ্ণ চুম্বন (২০১৬), জ্বালাই মশাল মানবমনে (২০১৮)।
শিশুতোষ : দোলনা দোলার কাব্য (২০২১)

আকিব শিকদার। জন্ম কিশোরগঞ্জ জেলার হোসেনপুর থানাধীন তারাপাশা গ্রামে, ০২ ডিসেম্বর ১৯৮৯ সালে। প্রফেসর আলহাজ মোঃ ইয়াকুব আলী শিকদার ও মোছাঃ নূরুন্নাহার বেগম এর জ্যেষ্ঠ সন্তান। স্নাতক পড়েছেন শান্ত-মরিয়ম ইউনিভার্সিটি থেকে ফ্যাশন ডিজাইন বিষয়ে। পাশাপাশি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতিতে স্নাতক ও স্নাতোকোত্তর। খন্ডকালীন শিক্ষকতা দিয়ে কর্মজীবন শুরু; বর্তমানে কর্মরত আছেন আইয়ূব-হেনা পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটে। ,

কবির বিধ্বস্ত কঙ্কাল (২০১৪), দেশদ্রোহীর অগ্নিদগ্ধ মুখ (২০১৫), কৃষ্ণপক্ষে যে দেয় উষ্ণ চুম্বন (২০১৬), জ্বালাই মশাল মানবমনে (২০১৮) তার উল্লেখযোগ্য কাব্যগ্রন্থ। দোলনা দোলার কাব্য (২০২১) তার শিশুতোষ কবিতার বই। ,

সাহিত্য চর্চায় উৎসাহ স্বরুপ পেয়েছেন “হো.সা.স. উদ্দীপনা সাহিত্য পদক”, “সমধারা সাহিত্য সম্মাননা”, “মেঠোপথ উদ্দীপনা পদক”, “পাপড়ি-করামত আলী সেরা লেখক সম্মাননা”। লেখালেখির পাশাপাশি সঙ্গীত ও চিত্রাংকন তার নেশা। ‘