নেত্রকোনা ০৫:১৮ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ৯ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

দুর্গাপুরে ভিজা বালুবাহী ট্রাক্টরে, ধ্বংস করছে গ্রাম উন্নয়নের রাস্তা

  • আপডেট : ০৫:১৪:০৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৮ অগাস্ট ২০১৯
  • ৭৫৩

দুর্গাপুর(নেত্রকোনা)প্রতিনিধি : নেত্রকোনার দুর্গাপুর উপজেলার চন্ডিগড় ইউনিয়নের জনবহুল কেরনখলা বাজার হতে চন্ডিগড় এবং কেরণখলা থেকে দুর্গাপুর কাচারী রোডের রাস্তা দিয়ে ভিজা বালুবাহী ট্রাক্টর চলাচলে ধ্বংস হচ্ছে গ্রামীন অবকাঠামো উন্নয়নের সড়ক গুলো, চরম হুমকীতে জীবন-যাপন করছে ওই এলাকার পথচারী ও শিক্ষার্থীরা।

এ নিয়ে বুধবার সরেজমিনে গিয়ে দেখাগেছে, কেরণখলা খেয়া-ঘাটের পশ্চিম দিক থেকে অসংখ্য বাংলা ড্রেজার বসিয়ে বালু উত্তোলন করা হচ্ছে। উত্তোলিত বালু লড়ি ট্রাক্টর যোগে কেরণখলা থেকে গ্রামীন সরু রাস্তা দিয়ে প্রতিনিয়ত পরিবহন করা হচ্ছে। এতে করে বেশক’টি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ও বে-সরকারী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের স্কুলে আসতে নানা ভোগান্তী পোহাতে হচ্ছে। ওই রাস্তার আশপাশে ১টি মহিলা মাদ্রাসাসহ কেরণখলা রেজিঃ স্বতন্ত্র এবতেদায়ী মাদ্রাসা রয়েছে। আধুনিক মানের এতিমখানা ও মানব কল্যানকামী অনাথালয়ের মতো একটি প্রতিষ্টানও রয়েছে। স্থানীয়রা জানান, এই রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন প্রায় ২ থেকে ৩ শত ট্রাক্টার চলাচলে রাস্তার অবস্থা করুণ দশায় পরিণত হয়েছে। রাস্তা পার হওয়া তো দূরের কথা ঐ রাস্তা দিয়ে পথচারীদের চলাচল করা অনেকটাই কঠিন হয়ে পড়েছে। ঘন্টার পর ঘন্টা জ্যাম লেগে থাকে ঐ রাস্তায়। এতে করে নানান ধরণের প্রতিবন্ধকতা তৈরী হচ্ছে স্কুলগামী শিক্ষার্থীদের। রাস্তায় বিঘœ ঘটায় শিশুরা স্কুলে যেতে ভয় পাচ্ছে। চন্ডিগড় বাজার (দুর্গাপুর-কলমাকান্দা) সরকারী রাস্তার উপরে বালুর মজুদ ব্যবসার অবাধ জমজমাটের ফলে নিত্যদিন লেগে থাকে মহাযানজট। এতে করে বিপাতে পড়তে হচ্ছে পথযাত্রী, শিক্ষার্থী, মূমুর্ষ রোগীর। এ যানজটের ফলে রাস্তা থেকে নেমে ফসলী জমির উপর দিয়ে চলচলা করতেও দেখা পথচারীদের। এ সমস্যা উত্তরণে প্রশাসনের কঠোর ভূমিকা চান স্থানীয় সচেতন মহল ও ক্ষুদে শিক্ষার্থী, অভিভাবকবৃন্দ। স্থানীয় একটি সিন্ডিকেট চক্র প্রভাবশালী মহলের যোগসাজসে অবৈধ বালুর স্টক মজুদ ব্যবসা অবাধে চালিয়ে আসছেন বলে অভিযোগ স্থানীয়দের। অন্যদিকে কাচারীমোড় হতে কেরণখলা রাস্তার উপর দিয়ে বালুবাহী ট্রাক চলাচলে অতিষ্ঠ হয়ে প্রশাসনের অপেক্ষায় বসে না থেকে সাধারণ জনগনই বন্ধ করে দিয়েছে ট্রাক্টর চলাচল। ভুক্তভোগীরা জানান, ভারী বালুবাহী ট্রাক্টর কেরনখলা থেকে কাচারী মোড় রাস্তার উপর দিয়ে চলাচলে নিষেধাজ্ঞা চেয়ে ইউএনও বরাবরে লিখিত অভিযোগ করেছেন স্থানীয়রা। বালুবাহী ট্রাক চলাচল বন্ধ করতে রাস্তার মাঝখানে খুঁটি পুঁতে প্রতিবাদ করা হয়েছে।

এ নিয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ফারজানা খানম বলেন, দুর্গাপুর পৌরসভা সহ আশপাশের ইজারাকৃত এলাকা থেকে ইতোমধ্যে ভিজাবালু পরিবহন নিষেধ করা হয়েছে। উপজেলার সকল রাস্তার উন্নয়ন, পথচারী ও শিক্ষার্থীদের সাচ্ছন্দে চলাচলে উপজেলা প্রশাসন থেকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আপনার মন্তব্য লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষণ করুন

প্রকাশক ও সম্পাদক সম্পর্কে-

আমি মো. শফিকুল আলম শাহীন। আমি একজন ওয়েব ডেভেলপার ও সাংবাদিক । আমি পূর্বকণ্ঠ অনলাইন প্রকাশনার সম্পাদক ও প্রকাশক। আমি জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে ইতিবাচক। আমি করতে, দেখতে এবং অভিজ্ঞতা করতে পছন্দ করি এমন অনেক কিছু আছে। আমি আইটি সেক্টর নিয়ে বিভিন্ন এক্সপেরিমেন্ট করতে পছন্দ করি। যেমন ওয়েব পেজ তৈরি করা, বিভিন্ন অ্যাপ তৈরি করা, অনলাইন রেডিও স্টেশন তৈরি করা, অনলাইন সংবাদপত্র তৈরি করা ইত্যাদি। আমাদের প্রকাশনা “পূর্বকন্ঠ” স্বাধীনতার চেতনায় একটি নিরপেক্ষ জাতীয় অনলাইন । পাঠক আমাদের সবচেয়ে বড় অনুপ্রেরনা। পূর্বকণ্ঠ কথা বলে বাঙালির আত্মপ্রত্যয়ী আহ্বান ও ত্যাগে অর্জিত স্বাধীনতার। কথা বলে স্বাধীনতার চেতনায় উদ্বুদ্ধ হতে। ছড়িয়ে দিতে এ চেতনা দেশের প্রত্যেক কোণে কোণে। আমরা রাষ্ট্রের আইন কানুন, রীতিনীতির প্রতি শ্রদ্ধাশীল। দেশপ্রেম ও রাষ্ট্রীয় আইন বিরোধী এবং বাঙ্গালীর আবহমান কালের সামাজিক সহনশীলতার বিপক্ষে পূর্বকন্ঠ কখনো সংবাদ প্রকাশ করে না। আমরা সকল ধর্মমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল, কোন ধর্মমত বা তাদের অনুসারীদের অনুভূতিতে আঘাত দিয়ে আমরা কিছু প্রকাশ করি না। আমাদের সকল প্রচেষ্টা পাঠকের সংবাদ চাহিদাকে কেন্দ্র করে। তাই পাঠকের যে কোনো মতামত আমরা সাদরে গ্রহন করব।

দুর্গাপুরে ভিজা বালুবাহী ট্রাক্টরে, ধ্বংস করছে গ্রাম উন্নয়নের রাস্তা

আপডেট : ০৫:১৪:০৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৮ অগাস্ট ২০১৯

দুর্গাপুর(নেত্রকোনা)প্রতিনিধি : নেত্রকোনার দুর্গাপুর উপজেলার চন্ডিগড় ইউনিয়নের জনবহুল কেরনখলা বাজার হতে চন্ডিগড় এবং কেরণখলা থেকে দুর্গাপুর কাচারী রোডের রাস্তা দিয়ে ভিজা বালুবাহী ট্রাক্টর চলাচলে ধ্বংস হচ্ছে গ্রামীন অবকাঠামো উন্নয়নের সড়ক গুলো, চরম হুমকীতে জীবন-যাপন করছে ওই এলাকার পথচারী ও শিক্ষার্থীরা।

এ নিয়ে বুধবার সরেজমিনে গিয়ে দেখাগেছে, কেরণখলা খেয়া-ঘাটের পশ্চিম দিক থেকে অসংখ্য বাংলা ড্রেজার বসিয়ে বালু উত্তোলন করা হচ্ছে। উত্তোলিত বালু লড়ি ট্রাক্টর যোগে কেরণখলা থেকে গ্রামীন সরু রাস্তা দিয়ে প্রতিনিয়ত পরিবহন করা হচ্ছে। এতে করে বেশক’টি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ও বে-সরকারী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের স্কুলে আসতে নানা ভোগান্তী পোহাতে হচ্ছে। ওই রাস্তার আশপাশে ১টি মহিলা মাদ্রাসাসহ কেরণখলা রেজিঃ স্বতন্ত্র এবতেদায়ী মাদ্রাসা রয়েছে। আধুনিক মানের এতিমখানা ও মানব কল্যানকামী অনাথালয়ের মতো একটি প্রতিষ্টানও রয়েছে। স্থানীয়রা জানান, এই রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন প্রায় ২ থেকে ৩ শত ট্রাক্টার চলাচলে রাস্তার অবস্থা করুণ দশায় পরিণত হয়েছে। রাস্তা পার হওয়া তো দূরের কথা ঐ রাস্তা দিয়ে পথচারীদের চলাচল করা অনেকটাই কঠিন হয়ে পড়েছে। ঘন্টার পর ঘন্টা জ্যাম লেগে থাকে ঐ রাস্তায়। এতে করে নানান ধরণের প্রতিবন্ধকতা তৈরী হচ্ছে স্কুলগামী শিক্ষার্থীদের। রাস্তায় বিঘœ ঘটায় শিশুরা স্কুলে যেতে ভয় পাচ্ছে। চন্ডিগড় বাজার (দুর্গাপুর-কলমাকান্দা) সরকারী রাস্তার উপরে বালুর মজুদ ব্যবসার অবাধ জমজমাটের ফলে নিত্যদিন লেগে থাকে মহাযানজট। এতে করে বিপাতে পড়তে হচ্ছে পথযাত্রী, শিক্ষার্থী, মূমুর্ষ রোগীর। এ যানজটের ফলে রাস্তা থেকে নেমে ফসলী জমির উপর দিয়ে চলচলা করতেও দেখা পথচারীদের। এ সমস্যা উত্তরণে প্রশাসনের কঠোর ভূমিকা চান স্থানীয় সচেতন মহল ও ক্ষুদে শিক্ষার্থী, অভিভাবকবৃন্দ। স্থানীয় একটি সিন্ডিকেট চক্র প্রভাবশালী মহলের যোগসাজসে অবৈধ বালুর স্টক মজুদ ব্যবসা অবাধে চালিয়ে আসছেন বলে অভিযোগ স্থানীয়দের। অন্যদিকে কাচারীমোড় হতে কেরণখলা রাস্তার উপর দিয়ে বালুবাহী ট্রাক চলাচলে অতিষ্ঠ হয়ে প্রশাসনের অপেক্ষায় বসে না থেকে সাধারণ জনগনই বন্ধ করে দিয়েছে ট্রাক্টর চলাচল। ভুক্তভোগীরা জানান, ভারী বালুবাহী ট্রাক্টর কেরনখলা থেকে কাচারী মোড় রাস্তার উপর দিয়ে চলাচলে নিষেধাজ্ঞা চেয়ে ইউএনও বরাবরে লিখিত অভিযোগ করেছেন স্থানীয়রা। বালুবাহী ট্রাক চলাচল বন্ধ করতে রাস্তার মাঝখানে খুঁটি পুঁতে প্রতিবাদ করা হয়েছে।

এ নিয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ফারজানা খানম বলেন, দুর্গাপুর পৌরসভা সহ আশপাশের ইজারাকৃত এলাকা থেকে ইতোমধ্যে ভিজাবালু পরিবহন নিষেধ করা হয়েছে। উপজেলার সকল রাস্তার উন্নয়ন, পথচারী ও শিক্ষার্থীদের সাচ্ছন্দে চলাচলে উপজেলা প্রশাসন থেকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।