নেত্রকোনা ১১:৫৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ১৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

গাজীপুরে ৩ কিলোমিটারে ৩ হাজার অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন

  • আপডেট : ১০:২৭:৩২ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯
  • ১২৬৭ বার পঠিত

সামসুল হক জুৃয়েল, গাজীপুর প্রতিনিধি: গাজীপুরের ভাওয়ার মির্জাপুর এলাকায় অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্নকরণ অভিযান পরিচালনা করেছে তিতাস গ্যাস কর্তৃপক্ষ।

বুধবার সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত ভাওয়াল মির্জাপুর কলেজ গেট এলাকায় এ অভিযান পরিচালনা করা হয়।

অভিযানে তিন কিলোমিটার জায়গার প্রায় তিন হাজার অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়।

তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন এন্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানী গাজীপুর অফিসের ব্যবস্থাপক অজিত চন্দ্র দেব জানান, গত মঙ্গলবার ভাওয়াল মির্জাপুর কলেজ গেট এলাকায় তিতাসের অবৈধ গ্যাস লাইন লিকেজ হয়ে অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। এর প্রেক্ষিতে বুধবার উক্ত এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে ৩ কিলোমিটার বিতরণ লাইনের উৎস বন্ধ করা হয়।

ফলে কলেজ গেট এলাকাসহ পার্শবর্তী পাইনশাইল, বহুরিয়াচালা, কেডিএস মোড় এলাকার প্রায় এক হাজার বাসার ৩ হাজারের অধিক অবৈধ চুলার লাইন বিচ্ছিন্ন হয় । এসময় অবৈধ গ্যাস সংযোগে ব্যবহৃত প্রায় ৫০০ ফুট পাইপ লাইন জব্দ করা হয়।

এলাকার লোকজনের সাথে কথা বলে জানা গেছে, স্থানীয় একটি কারখানার পাইপ হতে এসব এলাকায় অবৈধ গ্যাস সংযোগ দেয়া হয়েছিল। ইতিপূর্বেও একবার এসব এলাকার অবৈধ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়েছিল।

এরপরও বিভিন্ন লোকজনকে প্রলোভন দেখিয়ে পাইনশাইল এলাকার প্রভাবশালী একটি চক্র বিভিন্ন লোকজনের কাছ থেকে ৩৫ থেকে ৫০ হাজার টাকা নিয়ে এসব অবৈধ লাইন সংযোগ দেন।

প্রতারণার কৌশল হিসেবে প্রতিটি গ্রাহকের কাছ থেকে ছবি, ভোটার কার্ড ও জমির দলিল সংগ্রহ করে এসব অবৈধ লাইন বৈধ করার প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছিল।

অবৈধ লাইনে নিম্মমানের পাইপ ও সরঞ্জামাদি ব্যবহার করার কারণে বিভিন্ন সময় পাইপ লিকেজ হয়ে অগ্নিকান্ডের ঘটনাও ঘটেছে।

উল্লেখ্য গত মঙ্গলবারও এ ধরনের অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। অগ্নিকান্ডের পর পর অবৈধ সংযোগের সাথে জড়িতরা অভিযানের ভয়ে বিভিন্ন বাসা বাড়ীর সংযোগ খুলে ফেলেন।

এদিকে অভিযানের খবরে অবৈধ সংযোগ গ্রহণকারীরা গা-ঢাকা দেয়ায় কাউকে আটক বা জরিমানা করা যায়নি তবে অবৈধ গ্যাস সংযোগের ঘটনায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

তিতাসের ব্যবস্থাপক অজিত চন্দ্র দেব আরো জানান, প্রতিনিয়তই অবৈধ গ্যাস ব্যবহারকারীদের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালিত হচ্ছে। তাদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় মামলা করা হচ্ছে। এতকিছুর পরও অবৈধ লাইন ব্যবহার থামানো যাচ্ছে না।

তবে স্বল্প জনবল দিয়ে শুধুমাত্র তিতাসের একার পক্ষে এসব অবৈধ লাইন ব্যবহার পুরোপুরি বন্ধ করা সম্ভব নয়। প্রশাসনিকভাবে এদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ও শাস্তিমুলক ব্যবস্থা নিতে হবে।

অভিযানের সময় তিতাসের ব্যবস্থাপক অজিত চন্দ্র দেব ছাড়াও উপ-ব্যবস্থাপক আব্দুল আলিম রাসেল, সহকারী প্রকৌশলী মির্জা শাহনেওয়াজ লতিফ, উপ-সহকারী প্রকৌশলী মোঃ সাবিনুর রহমান, আনোয়ার হোসেন, আসাদুল্লাহ কায়সার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

আপনার মন্তব্য লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষণ করুন

প্রকাশক ও সম্পাদক সম্পর্কে-

শফিকুল আলম শাহীন

আমি একজন ওয়েব ডেভেলপার ও সাংবাদিক। আমি দৈনিক ইত্তেফাক পত্রিকায় পূর্বধলা উপজেলা সংবাদদাতা হিসেবে কর্মরত । সেইসাথে পূর্বকণ্ঠ অনলাইন প্রকাশনার সম্পাদক ও প্রকাশক। আমার বর্তমান ঠিকানা স্টেশন রোড, পূর্বধলা, নেত্রকোনা। আমি জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে ইতিবাচক। আমার ধর্ম ইসলাম। আমি করতে, দেখতে এবং অভিজ্ঞতা করতে পছন্দ করি এমন অনেক কিছু আছে। আমি আইটি সেক্টর নিয়ে বিভিন্ন এক্সপেরিমেন্ট করতে পছন্দ করি। যেমন ওয়েব পেজ তৈরি করা, বিভিন্ন অ্যাপ তৈরি করা, রেডিও স্টেশন তৈরি করা, অনলাইন সংবাদপত্র তৈরি করা ইত্যাদি। প্রয়োজনে: ০১৭১৩৫৭৩৫০২
জনপ্রিয়

গাজীপুরে ৩ কিলোমিটারে ৩ হাজার অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন

আপডেট : ১০:২৭:৩২ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯

সামসুল হক জুৃয়েল, গাজীপুর প্রতিনিধি: গাজীপুরের ভাওয়ার মির্জাপুর এলাকায় অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্নকরণ অভিযান পরিচালনা করেছে তিতাস গ্যাস কর্তৃপক্ষ।

বুধবার সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত ভাওয়াল মির্জাপুর কলেজ গেট এলাকায় এ অভিযান পরিচালনা করা হয়।

অভিযানে তিন কিলোমিটার জায়গার প্রায় তিন হাজার অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়।

তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন এন্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানী গাজীপুর অফিসের ব্যবস্থাপক অজিত চন্দ্র দেব জানান, গত মঙ্গলবার ভাওয়াল মির্জাপুর কলেজ গেট এলাকায় তিতাসের অবৈধ গ্যাস লাইন লিকেজ হয়ে অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। এর প্রেক্ষিতে বুধবার উক্ত এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে ৩ কিলোমিটার বিতরণ লাইনের উৎস বন্ধ করা হয়।

ফলে কলেজ গেট এলাকাসহ পার্শবর্তী পাইনশাইল, বহুরিয়াচালা, কেডিএস মোড় এলাকার প্রায় এক হাজার বাসার ৩ হাজারের অধিক অবৈধ চুলার লাইন বিচ্ছিন্ন হয় । এসময় অবৈধ গ্যাস সংযোগে ব্যবহৃত প্রায় ৫০০ ফুট পাইপ লাইন জব্দ করা হয়।

এলাকার লোকজনের সাথে কথা বলে জানা গেছে, স্থানীয় একটি কারখানার পাইপ হতে এসব এলাকায় অবৈধ গ্যাস সংযোগ দেয়া হয়েছিল। ইতিপূর্বেও একবার এসব এলাকার অবৈধ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়েছিল।

এরপরও বিভিন্ন লোকজনকে প্রলোভন দেখিয়ে পাইনশাইল এলাকার প্রভাবশালী একটি চক্র বিভিন্ন লোকজনের কাছ থেকে ৩৫ থেকে ৫০ হাজার টাকা নিয়ে এসব অবৈধ লাইন সংযোগ দেন।

প্রতারণার কৌশল হিসেবে প্রতিটি গ্রাহকের কাছ থেকে ছবি, ভোটার কার্ড ও জমির দলিল সংগ্রহ করে এসব অবৈধ লাইন বৈধ করার প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছিল।

অবৈধ লাইনে নিম্মমানের পাইপ ও সরঞ্জামাদি ব্যবহার করার কারণে বিভিন্ন সময় পাইপ লিকেজ হয়ে অগ্নিকান্ডের ঘটনাও ঘটেছে।

উল্লেখ্য গত মঙ্গলবারও এ ধরনের অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। অগ্নিকান্ডের পর পর অবৈধ সংযোগের সাথে জড়িতরা অভিযানের ভয়ে বিভিন্ন বাসা বাড়ীর সংযোগ খুলে ফেলেন।

এদিকে অভিযানের খবরে অবৈধ সংযোগ গ্রহণকারীরা গা-ঢাকা দেয়ায় কাউকে আটক বা জরিমানা করা যায়নি তবে অবৈধ গ্যাস সংযোগের ঘটনায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

তিতাসের ব্যবস্থাপক অজিত চন্দ্র দেব আরো জানান, প্রতিনিয়তই অবৈধ গ্যাস ব্যবহারকারীদের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালিত হচ্ছে। তাদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় মামলা করা হচ্ছে। এতকিছুর পরও অবৈধ লাইন ব্যবহার থামানো যাচ্ছে না।

তবে স্বল্প জনবল দিয়ে শুধুমাত্র তিতাসের একার পক্ষে এসব অবৈধ লাইন ব্যবহার পুরোপুরি বন্ধ করা সম্ভব নয়। প্রশাসনিকভাবে এদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ও শাস্তিমুলক ব্যবস্থা নিতে হবে।

অভিযানের সময় তিতাসের ব্যবস্থাপক অজিত চন্দ্র দেব ছাড়াও উপ-ব্যবস্থাপক আব্দুল আলিম রাসেল, সহকারী প্রকৌশলী মির্জা শাহনেওয়াজ লতিফ, উপ-সহকারী প্রকৌশলী মোঃ সাবিনুর রহমান, আনোয়ার হোসেন, আসাদুল্লাহ কায়সার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।