নেত্রকোনা ০১:৫২ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কুষ্টিয়ায় পারিবারিক কলহে ভায়রা’কে হত্যার দায়ে মৃত্যুদন্ড

  • আপডেট : ০৫:১৮:১৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৭ নভেম্বর ২০১৯
  • ২৫৩

নজরুল ইসলাম মুকুল, কুষ্টিয়া :

কুষ্টিয়া মিরপুর থানার চাঞ্চল্যকর ভায়রা(স্ত্রীর বোন জামাই)কে হাতুরি মেরে হত্যার দায়ে লালন গাজী(৩৫)নামে কাঠমিস্ত্রীর মৃত্যুদন্ড দিয়েছেন আদালত। বৃহষ্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টায় কুষ্টিয়া জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক অরূপ কুমার গোস্বামী জনাকীর্ণ আদালতে আসামীর উপস্থিতিতে এই রায় ঘোষনা করেন।

দন্ডপ্রাপ্ত হলেন- মিরপুর উপজেলার চিথলিয়া গ্রামের মৃত: মকবুল গাজীর ছেলে কাঠমিস্ত্রি লালন গাজী। আদালত সূত্রে জানা যায়, ২০১৭ সালের ১৪মার্চ বেলা পৌনে ১২টায় মিরপুর খন্দরবাড়িয়া পৌর পশুহাটের পানজাবারে চা-পান দোকানদার চেনি মোল্লা পান কেনার সময় আসামী লালন গাজী পূর্ব থেকে সৃষ্ট দাম্পত্য কলহের জেরে আক্রোশ বশত: চেনি মোল্লাকে হাতুরি দিয়ে মাথায় ও ঘাড়ে আঘাত করে রক্তাক্ত জখম করে।

স্থানীয়রা আহত চেনি মোল্লাকে উদ্ধার করে মিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কম্পেøক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাকে মৃত: ঘোষনা করেন। এঘটনায় নিহতের ভাই মিরাজুল ইসলাম মেনি মোল্লা বাদি হয়ে মিরপুর থানায় হত্যা মামলা করেন। মামলাটি তদন্ত শেষে ২০১৭ সালের ৩১ আগষ্ট আসামী লালন গাজীর বিরুদ্ধে দ:বি:৩০২ ধারায় অভিযোগ এনে আদালতে চার্জসীট দাখিল করেন পুলিশ।

সত্যতা নিশ্চিত করে আদালতের সরকারী কৌশুলী এ্যাড. অনুপ কুমার নন্দী জানান, মিরপুর থানার চাঞ্চল্যকর হাতুরি পেটায় নিজ ভায়রাকে হত্যা দায়ে আনীত অভিযোগ সন্দেহাতীত প্রমানিত হওয়ায় আসামী লালন গাজীকে মৃত্যুদন্ডে দন্ডিত করেন আদালত।

আপনার মন্তব্য লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষণ করুন

প্রকাশক ও সম্পাদক সম্পর্কে-

আমি মো. শফিকুল আলম শাহীন। আমি একজন ওয়েব ডেভেলপার ও সাংবাদিক । আমি পূর্বকণ্ঠ অনলাইন প্রকাশনার সম্পাদক ও প্রকাশক। আমি জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে ইতিবাচক। আমি করতে, দেখতে এবং অভিজ্ঞতা করতে পছন্দ করি এমন অনেক কিছু আছে। আমি আইটি সেক্টর নিয়ে বিভিন্ন এক্সপেরিমেন্ট করতে পছন্দ করি। যেমন ওয়েব পেজ তৈরি করা, বিভিন্ন অ্যাপ তৈরি করা, অনলাইন রেডিও স্টেশন তৈরি করা, অনলাইন সংবাদপত্র তৈরি করা ইত্যাদি।

কুষ্টিয়ায় পারিবারিক কলহে ভায়রা’কে হত্যার দায়ে মৃত্যুদন্ড

আপডেট : ০৫:১৮:১৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৭ নভেম্বর ২০১৯

নজরুল ইসলাম মুকুল, কুষ্টিয়া :

কুষ্টিয়া মিরপুর থানার চাঞ্চল্যকর ভায়রা(স্ত্রীর বোন জামাই)কে হাতুরি মেরে হত্যার দায়ে লালন গাজী(৩৫)নামে কাঠমিস্ত্রীর মৃত্যুদন্ড দিয়েছেন আদালত। বৃহষ্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টায় কুষ্টিয়া জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক অরূপ কুমার গোস্বামী জনাকীর্ণ আদালতে আসামীর উপস্থিতিতে এই রায় ঘোষনা করেন।

দন্ডপ্রাপ্ত হলেন- মিরপুর উপজেলার চিথলিয়া গ্রামের মৃত: মকবুল গাজীর ছেলে কাঠমিস্ত্রি লালন গাজী। আদালত সূত্রে জানা যায়, ২০১৭ সালের ১৪মার্চ বেলা পৌনে ১২টায় মিরপুর খন্দরবাড়িয়া পৌর পশুহাটের পানজাবারে চা-পান দোকানদার চেনি মোল্লা পান কেনার সময় আসামী লালন গাজী পূর্ব থেকে সৃষ্ট দাম্পত্য কলহের জেরে আক্রোশ বশত: চেনি মোল্লাকে হাতুরি দিয়ে মাথায় ও ঘাড়ে আঘাত করে রক্তাক্ত জখম করে।

স্থানীয়রা আহত চেনি মোল্লাকে উদ্ধার করে মিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কম্পেøক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাকে মৃত: ঘোষনা করেন। এঘটনায় নিহতের ভাই মিরাজুল ইসলাম মেনি মোল্লা বাদি হয়ে মিরপুর থানায় হত্যা মামলা করেন। মামলাটি তদন্ত শেষে ২০১৭ সালের ৩১ আগষ্ট আসামী লালন গাজীর বিরুদ্ধে দ:বি:৩০২ ধারায় অভিযোগ এনে আদালতে চার্জসীট দাখিল করেন পুলিশ।

সত্যতা নিশ্চিত করে আদালতের সরকারী কৌশুলী এ্যাড. অনুপ কুমার নন্দী জানান, মিরপুর থানার চাঞ্চল্যকর হাতুরি পেটায় নিজ ভায়রাকে হত্যা দায়ে আনীত অভিযোগ সন্দেহাতীত প্রমানিত হওয়ায় আসামী লালন গাজীকে মৃত্যুদন্ডে দন্ডিত করেন আদালত।