রবিবার, ০১ নভেম্বর ২০২০, ০৬:৫৪ পূর্বাহ্ন

পাটুরিয়ায় পণ্যবাহী ট্রাক পারাপারে বাড়তি টাকা আদায়ের অভিযোগ

পূর্বকন্ঠ ডেস্ক;
  • আপডেট টাইম : শুক্রবার, ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১০:৩০ পূর্বাহ্ন
  • ৪৭ বার পড়া হয়েছে

পাটুরিয়ায় পণ্যবাহী ট্রাক পারাপারে বাড়তি টাকা লাগছে। বাড়তি টাকা না দিলে টিকিটের জন্য হয়রানি হতে হয়, অভিযোগ ট্রাকচালকদের।

রাজধানী ঢাকার সাথে দেশের দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলের ২১টি জেলার প্রবেশদ্বার হিসেবে খ্যাত পাটুরিয়া দৌলতদিয়ায় যানবাহনের ভিড় এখন অস্বাভাবিক। সম্প্রতি শিমুলিয়া কাঁঠালবাড়ি নৌপথ বন্ধ থাকায় এ নৌপথে যানবাহনের বাড়তি চাপ পড়েছে।

স্বাভাবিক সময়ে এ নৌপথ দিয়ে প্রতিদিন গড়ে ২ থেকে আড়াই হাজার যানবাহন পারাপার করা হয়ে থাকে। আগের তুলনায় যানবাহনের চাপ বেড়ে যাওয়ায় এ নৌপথে প্রতিদিন ৩ হাজারেরও বেশি যানবাহন পারাপার করা হচ্ছে বলে জানিয়েছে বিআইডব্লিউটিসি।

এই পরিস্থিতিতে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে ছোট গাড়ি ও বাস পারাপারের সুযোগ পেলেও আটকে পড়ছে পণ্যবাহী ট্রাক। অভিযোগ, এ সুযোগে ট্রাকের চালক ও শ্রমিকদের কাছ থেকে বাড়তি টাকা নিয়ে পারাপারের ব্যবস্থা করে দিচ্ছে টিকিট কাউন্টারের অসাধু লোকজন। টিকেট কাউন্টারে বাড়তি টাকা না দিলে টিকিটের জন্য হয়রানি হতে হয় বলে অভিযোগ ট্রাক চালকদের।  ফলে বাড়তি টাকা পরিশোধ করতে না পারায় ২ থেকে ৩ দিন পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হচ্ছে তাদের। আর যারা বাড়তি টাকা দিচ্ছেন  তারা অনায়াসে সিরিয়াল ছাড়াই সরাসরি ফেরিতে উঠার সুযোগ পাচ্ছেন।

বৃহস্পতিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) দুপুর ১টা থেকে বিকাল সাড়ে ৫টা পর্যন্ত পাটুরিয়া ঘাট এলাকায় ট্রাকচালকদের সাথে কথা বলে এসব তথ্য পাওয়া গেছে।

সুলাইমান নামের একজন ট্রাকচালক বলেন, ২ দিন ধরে ঘাটের ট্রাক টার্মিনালে বসে আছি। অথচ অনেক পণ্যবাহী ট্রাক টাকার বিনিময়ে সিরিয়াল ছাড়াই পারাপার করা হচ্ছে। বাধ্য হয়েই ১ হাজার ৪শ ৬০ টাকার টিকেট ২ হাজার ৫শ টাকা দিয়ে নিয়েছি।

আরেক ট্রাকচালক লিয়াকত হোসেন জানালেন, ঘাট এলাকায় কোন শৃঙ্খলা নেই।  আমি আগে এসেও আগে ফেরিতে উঠতে পারিনি।  অনেকেই বেশি টাকা দিয়ে টিকিট নিয়ে আগে চলে গেছে। আমাকেও টিকেট কাউন্টার থেকে ১ হাজার ৪০ টাকার টিকেট ১ হাজার ৩শ টাকা দিয়ে নিতে হয়েছে।

এ বিষয়ে আরিচা কার্যালয়ের সহ-মহাব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) মো.তানভীর হোসেন জানান, প্রতিদিন পাটুরিয়া দৌলতদিয়া নৌপথে ১ হাজার থেকে ১২শ পণ্যবাহী ট্রাক পারাপার করা হচ্ছে। জরুরি ও পচনশীল পণ্যবাহী ট্রাকগুলো অগ্রাধিকার ভিত্তিতে পারাপার করা হচ্ছে। এছাড়া এসব ট্রাক ঘাট টার্মিনাল এলাকায় প্রবেশ করার আগে ওজন স্কেল থেকে পরিমাপ করানো হয়। অনেক পণ্যবাহী ট্রাককে বাড়তি মালামালের জন্য সরকার নির্ধারিত মূল্য পরিশোধ করে পারাপার হতে হয়। এর বাইরে কোন ট্রাকচালকদের কাছ থেকে কোন টাকা আদায় করা হয়না।

Source link

এ জাতীয় আরও সংবাদ
এক ক্লিকে বিভাগের খবর

©২০২০ সর্বস্তত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | পূর্বকন্ঠ
কারিগরি সহযোগিতায়- Shahin প্রয়োজনে: ০১৭১৩৫৭৩৫০২

Notice: Undefined index: config_theme in /home/purbakantho/public_html/wp-content/themes/LatestNews/include/root.php on line 33
themesba-lates1749691102