সোমবার, ০১ জুন ২০২০, ০৬:৩৬ অপরাহ্ন

আমাদের পূর্বকন্ঠ ওয়েবসাইটে প্রবেশ করার জন্য আপনাকে স্বাগতম। আমাদের নিয়মিত আপডেট খবর পেতে এখনই ওয়েব পেজটি সাবস্ক্রাইব করুন। আপনার আশপাশে ঘটে যাওয়া খবরা খবর জানাতে আমাদের ফোন করুন-০১৭১৩৫৭৩৫০২ এই নাম্বারে।

নিজস্ব গাড়ি নেই, রেন্ট-এ-কারই ভরসা

নিজস্ব প্রতিবেদক :
  • আপডেট টাইম : শুক্রবার, ২২ মে, ২০২০
  • ৫৮ বার পড়া হয়েছে

সরকারিভাবে গণপরিবহন বন্ধ ঘোষণা করা হলেও থামছে না ঈদে ঘরমুখো মানুষের ভিড়। বাড়ি ফিরতে নানা কৌশলে অবলম্বন করছেন সাধারণ মানুষ। পণ‌্যবাহী গাড়িতে করে চলাচলের সময় ঘটছে নানা দুর্ঘটনা। তার পরেও থেমে থাকছে না বাড়ি ফেরা।

তাই ব্যক্তিগত গাড়িতে বাড়ি ফেরা যাবে এমন ঘোষণা আসার পর পরই রাজধানীবাসী ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন রেন্ট-এ-কার এ গাড়ি ভাড়া করতে। যাদের নিজস্ব গাড়ি নেই তারা এখন রেন্ট-এ-কার এর গাড়িতেই ভরসা করছেন। ভাড়া করা গাড়িতেই বাড়ি যাওয়ার পরিকল্পনা করছেন তারা।

এদিকে এ সংবাদের পর রাজধানীর বিভিন্ন স্থানের রেন্ট-এ-কার ব্যবসায়ীরা অফিস খোলা শুরু করেছে। আবার অনেকে মোবাইল ফোনে কথা বলেই গাড়ি ভাড়ার বিষয়টি চূড়ান্ত করছে।

ধানমন্ডি জিগাতলার বাসিন্দা মোহাম্মদ জুবায়ের হোসেনের সঙ্গে কথা হয়। রাইজিংবিডিকে তিনি বলেন, ‘আমার গ্রামের বাড়ি খুলনায়। ঢাকায় একটা প্রাইভেট কোম্পানিতে কাজ করি। ঈদের ছুটিতে ভেবেছিলাম বাড়ি যেতে পারব না। ঘূর্ণিঝড় আম্ফানের কারণে আমার এলাকায় অনেক ক্ষতি হয়েছে। ইচ্ছে থাকলেও যেতে পারিনি। পরিবহণ বন্ধ থাকার কারণে। আজ শুনলাম ব্যক্তিগত পরিবহণ নিয়ে বাড়ি যাওয়া যাবে। এখন ভাবছি রেন্ট-এ-কার এর গাড়ি ভাড়া করে বাড়ি যাব। ঈদের সময় অন্তত পরিবারের সবার সঙ্গে আনন্দ করতে পারব।’

তিনি বলেন, ‘আমি একটি রেন্ট-এ-কার এর অফিসে কথা বলেছি খুলনা যাওয়ার জন্য। কিন্তু স্বাভাবিক সময়ের তুলনায় এখন ভাড়া চাচ্ছে অনেক বেশি। করোনার কারণেই মূলত ভাড়া বেশি চাচ্ছেন ব্যবসায়ীরা। কিন্তু অল্প কিছু বেশি চাইলেও হয় সেখানে প্রায় দ্বিগুণ ভাড়া চাচ্ছে। স্বাভাবিক সময়ে একটি প্রাইভেট কারের ভাড়া (একদিন) প্রকারভেবে তিন থেকে চার টাকা হয়ে থাকে কিন্তু এখন একদিনের জন্য ভাড়া চাওয়া হচ্ছে ছয় থেকে সাড়ে ছয় হাজার টাকা। তাতে খুলনা যেতে হলে খরচ পড়ে যাবে দশ থেকে ১২ হাজার টাকার মতো। কারণ, হিসেবে তারা বলছে ফেরার সময় তারা ভাড়া পাবে না। খালি ফিরতে হবে। তাই আপডাউনের হিসেব করেই তারা ভাড়া চাচ্ছে। তার পরেও কথা হচ্ছে বাড়ি যেতেই হবে। সবার সঙ্গে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করার থেকে টাকাতো বড় নয়।’

বরিশালের রিয়াদুল ইসলাম থাকেন রাজধানীর মোহাম্মাদপুরে। তিনি রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘‘করোনাভাইরাসের কারণে প্রথমে শুনেছিলাম এক জেলা থেকে অন্য জেলায় ঈদের সময় মানুষ যাতায়াত করতে পারবে না। তবে আজ সকালে শুনলাম ব্যক্তিগত গাড়ি চলাচল করতে পারবে। আমারতো আর নিজের গাড়ি নেই, তাই রেন্ট-এ-কার এর গাড়িই ভরসা।

‘আমি যাবো বরিশালে। আমার এক বন্ধুর সাথে কথা বলেছি। সেও যাবে। তাই ভাবছি দুই বন্ধু মিলে একটা গাড়ি ভাড়া করে নেবো। তাতে খরচ কিছুটা কম পড়বে।”

রাজধানীর ধানমন্ডি এলাকার রেন্ট-এ-কার ব্যবসায়ী মোহাম্মদ মিজানুর রহমান রাইজিংবিডিকে বলেন, “আজ সকালে হঠাৎ করেই তিন-চার জন আমাকে মোবাইলে কল দিয়েছেন। গাড়ি ভাড়া দেওয়া হবে কি না জানতে চাইছিলেন। আমি তখন কিছুই বুঝতে পারছিলাম না। করোনাভাইরাসের কারণে প্রায় দুই মাস ধরে আমার ব্যবসা বন্ধ। ড্রাইভারদের ও ছুটি দিয়ে দিয়েছি।

‘পরে নিউজে দেখলাম ব্যক্তিগত পরিবহণ নাকি চলাচল করতে পারবে। তাই গাড়ি ভাড়া দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়ে ড্রাইভারদের আসতে বলেছি। অনেকেই গ্রামের বাড়ি যাবে। ইতোমধ্যে বুকিং হয়ে গেছে কয়েকটি।”

ভাড়ার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘স্বাভাবিক সময়ের তুলনায় এখন ভাড়া একটু বেশিই হবে। কারণ ড্রাইভার পাওয়া যাবে না এখন। করোনার কারণে এখন অনেকেই গাড়ি চালাতে চাচ্ছে না। জীবনের মায়াতো সবার আছে তাই না? আবার ঢাকার বাইরে গাড়ি গেলে তখন আমরা আপডাউনের ভাড়া নিয়ে থাকি। কারণ, আসার সময় গাড়িটা খালি আসতে হয়। তাই ঢাকার বাইরে গেলে আমরা ভাড়া বেশি নিই।’

রাজধানীর আজিমপুরের ওপর এক রেন্ট-এ-কার ব্যবসায়ী রুহুল আমিন হাওলাদার রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘গতকাল রাতেই নাকি এমন সিদ্ধান্ত এসেছে যে, ব্যক্তিগত পরিবহণ চলাচল করতে পারবে বা এক স্থান থেকে অন্য স্থানে যেতে পারবে। এটা শুনেই আমি অফিসের মোবাইল চালু করেছি। অনেকেই গাড়ি ভাড়ার জন্য কল দিয়েছেন। যদিও এখনও আমার অফিস খুলিনি। মোবাইলের মাধ্যমেই বুকিং দেওয়া হবে।’

রাজধানীর বিভিন্ন স্থানের রেন্ট-এ-কার ব্যবসায়ীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ‘গণপরিবহন চলাচল না করায় ও ব্যক্তিগত গাড়ি চলাচল করতে দেওয়ায় রেন্ট-এ-কার এর গাড়ির চাহিদা বেড়ে যাবে ঈদের আগের এই কয়দিনে। তাই রেন্ট-এ-কার ব্যবসায়ীরা তাদের ড্রাইভার ডেকে নিয়ে আসছেন।’

এ বিষয়ে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) গণমাধ্যম শাখার উপ-কমিশনার ওয়ালিদ হোসেন রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘আমরা এই ধরনের একটি নির্দেশনা পেয়েছি। নিজস্ব পরিবহনে যাতায়াতের ক্ষেত্রেও স্বাস্থ্যবিধি যেন যথাযথভাবে পালন করা হয়, সেই নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ঈদে কোনো গণপরিবহন চলাচল করতে দেওয়া হবে না। তবে ব্যক্তিগত গাড়ি চলাচল করতে পারেব। গণপরিবহন ছাড়া অন্য ব্যক্তিগত যে কোনো গাড়ি চলবে।’

ঢাকা/সনি

Source link

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও সংবাদ

বাংলাদেশে করোনা ভাইরাস

সর্বমোট

আক্রান্ত
৪৯,৫৩৪
সুস্থ
১০,৫৯৭
মৃত্যু
৬৭২
সূত্র: আইইডিসিআর

সর্বশেষ

আক্রান্ত
২,৩৮১
সুস্থ
৮১৬
মৃত্যু
২২
স্পন্সর: একতা হোস্ট

নামাজের সময় সূচি

  • ফজর
  • যোহর
  • আছর
  • মাগরিব
  • এশা
  • সূর্যোদয়
  • ৩:৪৬ পূর্বাহ্ণ
  • ১১:৫৯ পূর্বাহ্ণ
  • ৪:৩৪ অপরাহ্ণ
  • ৬:৪৫ অপরাহ্ণ
  • ৮:১০ অপরাহ্ণ
  • ৫:০৯ পূর্বাহ্ণ

© All rights reserved © 2020 purbakantho
কারিগরি সহযোগিতায়-SHAHIN প্রয়োজনে:০১৭১৩৫৭৩৫০২ purbakantho
themesba-lates1749691102