নেত্রকোনা ০৮:২১ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৪ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

৬০ ভারতীয় গরু জব্দ করলেন দুর্গাপুর সার্কেলের এএসপি নেলী

চোরাকারবারিদের ধাওয়া করে ভারতীয় ৬০টি ষাঁড় গরু জব্দ করেছেন নেত্রকোনার দুর্গাপুর-কলমাকান্দা উপজেলা সার্কেলের সহকারি পুলিশ সুপার মাহমুদা শারমীন নেলী। এসময় পালিয়ে যেতে জড়িতরা সক্ষম হয়। এএসপি শারমিন নেলী কলমাকান্দায় উপজেলায় ওপেন হাউজ ডে অনুষ্ঠানে যাবার পথে রোববার দুপুরে লেগুরা ইউপির রাজনগর এলাকায় থেকে চোরাই এই ভারতীয় গরুগুলো জব্দ করেছেন।

পরে ধাওয়ার কবলে পড়ে চোরাকারবারিরা রেখে ৬০টি গরু রেখে পালিয়ে গেলে পুলিশ সদস্যদের নিয়ে তিনি ওই গরুগুলো জব্দ করেন। এই নিয়ে দু’দিনের অভিযানে সাতাত্তরটি গরু জব্দ করলেন এএসপি নেলী। গরু জব্দের পর সংশ্লিষ্ট থানায় উপজেলার কালিকাপুর গ্রামের মৃত চেরাগ আলীর ছেলে মো. সাদির মিয়া (৪৫) ও ফেচিয়া গ্রামের জালাল উদ্দিনের ছেলে মো. আফজাল মিয়াকে (১৯) আসামি করে মামলা দায়ের করে পুলিশ।

এরআগেও জেলার দুর্গাপুর উপজেলার চন্ডিগড় ইউনিয়নের ফেচিয়া গ্রাম থেকে সতেরটি ভারতীয় গরু জব্দও করেন তিনি। তখনও এই নারী পুলিশ কর্মকর্তার ধাওয়া খেয়ে গরু রেখেই পালিয়েছিলো চোরাকারবারিরা।

তিনি জানান, চোরাপথে দেশে ভারতীয় গরু এসেছে বিশস্ত মাধ্যমে এমন গোপন সংবাদ পেয়ে রাজনগর গ্রামে অভিযান চালানো হয়। পরে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন ওই এলাকায় বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দৌঁড়ে-হেঁটে নদী পাড়ি দিয়ে প্রবেশ করে ধাওয়া করা হয় চোরাকারবারিদের।

পুলিশি ধাওয়ায় গ্রেফতার এড়াতে জড়িতরা একপর্যায় গরু রেখেই পালাতে বাধ্য হয়। পরে সবগুলো গরু জব্দ করে থানায় নিয়ে আসা হয়।এ অভিযানে বিভিন্ন মাধ্যমে জানা গেছে পূর্বের গরু জব্দ করা চালানের সাদির এ ঘটনায়ও জড়িত। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে বলে জানান তিনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষণ করুন

প্রকাশক ও সম্পাদক সম্পর্কে-

শফিকুল আলম শাহীন

আমি একজন ওয়েব ডেভেলপার ও সাংবাদিক। আমি দৈনিক ইত্তেফাক পত্রিকায় পূর্বধলা উপজেলা সংবাদদাতা হিসেবে কর্মরত । সেইসাথে পূর্বকণ্ঠ অনলাইন প্রকাশনার সম্পাদক ও প্রকাশক। আমার বর্তমান ঠিকানা স্টেশন রোড, পূর্বধলা, নেত্রকোনা। আমি জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে ইতিবাচক। আমার ধর্ম ইসলাম। আমি করতে, দেখতে এবং অভিজ্ঞতা করতে পছন্দ করি এমন অনেক কিছু আছে। আমি আইটি সেক্টর নিয়ে বিভিন্ন এক্সপেরিমেন্ট করতে পছন্দ করি। যেমন ওয়েব পেজ তৈরি করা, বিভিন্ন অ্যাপ তৈরি করা, রেডিও স্টেশন তৈরি করা, অনলাইন সংবাদপত্র তৈরি করা ইত্যাদি। প্রয়োজনে: ০১৭১৩৫৭৩৫০২

৬০ ভারতীয় গরু জব্দ করলেন দুর্গাপুর সার্কেলের এএসপি নেলী

আপডেট : ০৮:১৯:৩৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৬ জানুয়ারী ২০২০

চোরাকারবারিদের ধাওয়া করে ভারতীয় ৬০টি ষাঁড় গরু জব্দ করেছেন নেত্রকোনার দুর্গাপুর-কলমাকান্দা উপজেলা সার্কেলের সহকারি পুলিশ সুপার মাহমুদা শারমীন নেলী। এসময় পালিয়ে যেতে জড়িতরা সক্ষম হয়। এএসপি শারমিন নেলী কলমাকান্দায় উপজেলায় ওপেন হাউজ ডে অনুষ্ঠানে যাবার পথে রোববার দুপুরে লেগুরা ইউপির রাজনগর এলাকায় থেকে চোরাই এই ভারতীয় গরুগুলো জব্দ করেছেন।

পরে ধাওয়ার কবলে পড়ে চোরাকারবারিরা রেখে ৬০টি গরু রেখে পালিয়ে গেলে পুলিশ সদস্যদের নিয়ে তিনি ওই গরুগুলো জব্দ করেন। এই নিয়ে দু’দিনের অভিযানে সাতাত্তরটি গরু জব্দ করলেন এএসপি নেলী। গরু জব্দের পর সংশ্লিষ্ট থানায় উপজেলার কালিকাপুর গ্রামের মৃত চেরাগ আলীর ছেলে মো. সাদির মিয়া (৪৫) ও ফেচিয়া গ্রামের জালাল উদ্দিনের ছেলে মো. আফজাল মিয়াকে (১৯) আসামি করে মামলা দায়ের করে পুলিশ।

এরআগেও জেলার দুর্গাপুর উপজেলার চন্ডিগড় ইউনিয়নের ফেচিয়া গ্রাম থেকে সতেরটি ভারতীয় গরু জব্দও করেন তিনি। তখনও এই নারী পুলিশ কর্মকর্তার ধাওয়া খেয়ে গরু রেখেই পালিয়েছিলো চোরাকারবারিরা।

তিনি জানান, চোরাপথে দেশে ভারতীয় গরু এসেছে বিশস্ত মাধ্যমে এমন গোপন সংবাদ পেয়ে রাজনগর গ্রামে অভিযান চালানো হয়। পরে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন ওই এলাকায় বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দৌঁড়ে-হেঁটে নদী পাড়ি দিয়ে প্রবেশ করে ধাওয়া করা হয় চোরাকারবারিদের।

পুলিশি ধাওয়ায় গ্রেফতার এড়াতে জড়িতরা একপর্যায় গরু রেখেই পালাতে বাধ্য হয়। পরে সবগুলো গরু জব্দ করে থানায় নিয়ে আসা হয়।এ অভিযানে বিভিন্ন মাধ্যমে জানা গেছে পূর্বের গরু জব্দ করা চালানের সাদির এ ঘটনায়ও জড়িত। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে বলে জানান তিনি।