নেত্রকোনা ০৫:১৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ৯ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

শ্রীমঙ্গলে পুলিশের অভিযান ১১ কেজি গাঁজাসহ বিপুল পরিমান চোলাই মদ ও তৈরীর সরঞ্জাম উদ্ধার

  • আপডেট : ০৭:৩৪:১৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৯
  • ১৮২

শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধি:মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল উপজেলার কালীঘাট ইউনিয়নের কালীঘাট চা বাগানের পুলিশের অভিযানে ১১ কেজি গাঁজাসহ বিপুল পরিমাণ চোলাই মদ ও মদ তৈরীর নানা সরঞ্জাম উদ্ধার করেছে পুলিশ।
সোমবার ৩০ সেপ্টেম্বর দুপুরের শ্রীমঙ্গল থানার ওসি (তদন্ত) সোহেল রানার নেতৃত্বে অন্যান্য অফিসারদের নিয়ে কালিঘাট চা বাগানের ৯নং লেবার লাইনে অভিযান চালিয়ে চোলাই মদ ও মদ তৈরীর বিভিন্ন সরঞ্জাম উদ্ধার করে শ্রীমঙ্গল থানা পুলিশ । এসময় পুলিশী অভিযানের খবর টের পেয়ে মদ তৈরীর কারিগরা দ্রুত সময়ের মধ্যে পালিয়ে যায়।
অন্যদিকে বিকেল সাড়ে তিনটায় শ্রীমঙ্গল থানার এস আই সুমন হাজরার নেতৃত্বে অপর একটি দল সঙ্গীয় পুলিশ ফোর্স নিয়ে উকিল বাড়ী সড়ক হয়ে একটি পিক আপ গাড়ীতে পাচার কালে চারটি প্যাকেটে ১১ কেজি গাঁজাসহ রাজনগর থানার কাটাজুরী গ্রামের রবীন্দ্র বৈদ্যর ছেলে নিমাই বৈদ্যকে আটক করে। পুলিশ জানায়,আটককৃত গাঁজা মৌলভীবাজারের রাজনগর উপজেলা থেকে পিকআপ ভর্তি করে ঢাকার উদ্দেশ্যে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গাঁজাসহ ওই পিকআপ আটক করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে।
শ্রীমঙ্গল থানার ওসি মো.আব্দুছ ছালেক জানান, তারা গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলার কালিঘাট ইউনিয়নের কালিঘাট চা বাগানের লেবার লাইনের পাশাপাশি (নাচ ঘরের পাশে) লালন চাষা, রঞ্জিত ভৌমিজ ও সন্তোষ তাঁতী’র বসত ঘরে অভিযান চালানো হয়। পুলিশী অভিযানের খবর টের তারা পালিয়ে যায়।
পরে পুলিশ তিন ঘরের বিভিন্ন কক্ষে তল্লাশী করে বিপুল পরিমান তৈরী চোলাই মদ ও মদ তৈরীর সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারকৃত মদের পরিমান প্রায় সাড়ে ৭শ লিটার। অপর একটি অভিযানে ১ কেজি গাঁজাসহ একজনকে আটক করা হয়েছে। তিনি জানান, তাদের বিরুদ্ধে মাদক আইনে মামলা দায়ের হবে এবং মাদকের বিরুদ্ধে পুলিশের অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানান।
মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে পুলিশের পৃথক অভিযানে ১১ কেজি গাঁজাসহ বিপুল পরিমাণ চোলাই মদ ও মদ তৈরীর সরঞ্জাম উদ্ধার করেছে পুলিশ।
সোমবার দুপুরের শ্রীমঙ্গল থানার ওসি (তদন্ত) সোহেল রানার নেতৃত্বে অন্যান্য অফিসারদের নিয়ে কালিঘাট চা বাগানের লেবার লাইনে অভিযান চালিয়ে চোলাই মদ ও মদ তৈরীর সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়। এসময় পুলিশী অভিযানের খবর টের পেয়ে মদ তৈরীর কারিগরা পালিয়ে যায়।
অন্যদিকে বিকেল সাড়ে তিনটায় শ্রীমঙ্গল থানার এস আই সুমন হাজরার নেতৃত্বে অপর একটি দল সঙ্গীয় পুলিশ ফোর্স নিয়ে উকিল বাড়ী সড়ক হয়ে একটি পিক আপ গাড়ীতে পাচার কালে চারটি প্যাকেটে ১১ কেজি গাঁজাসহ রাজনগর থানার কাটাজুরী গ্রামের রবীন্দ্র বৈদ্যর ছেলে নিমাই বৈদ্যকে আটক করে। পুলিশ জানায়,আটককৃত গাঁজা মৌলভীবাজারের রাজনগর উপজেলা থেকে পিকআপ ভর্তি করে ঢাকার উদ্দেশ্যে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গাঁজাসহ ওই পিকআপ আটক করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে।
শ্রীমঙ্গল থানার ওসি মো.আব্দুছ ছালেক জানান, তারা গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলার কালিঘাট ইউনিয়নের কালিঘাট চা বাগানের লেবার লাইনের পাশাপাশি (নাচ ঘরের পাশে) লালন চাষা, রঞ্জিত ভৌমিজ ও সন্তোষ তাঁতী’র বসত ঘরে অভিযান চালানো হয়। পুলিশী অভিযানের খবর টের তারা পালিয়ে যায়।
পরে পুলিশ তিন ঘরের বিভিন্ন কক্ষে তল্লাশী করে বিপুল পরিমান তৈরী চোলাই মদ ও মদ তৈরীর সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারকৃত মদের পরিমান প্রায় সাড়ে ৭শ লিটার। অপর একটি অভিযানে ১ কেজি গাঁজাসহ একজনকে আটক করা হয়েছে। তিনি জানান, তাদের বিরুদ্ধে মাদক আইনে মামলা দায়ের হবে এবং মাদকের বিরুদ্ধে পুলিশের অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানান। সম্পাদনা: সুমন

আপনার মন্তব্য লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষণ করুন

প্রকাশক ও সম্পাদক সম্পর্কে-

আমি মো. শফিকুল আলম শাহীন। আমি একজন ওয়েব ডেভেলপার ও সাংবাদিক । আমি পূর্বকণ্ঠ অনলাইন প্রকাশনার সম্পাদক ও প্রকাশক। আমি জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে ইতিবাচক। আমি করতে, দেখতে এবং অভিজ্ঞতা করতে পছন্দ করি এমন অনেক কিছু আছে। আমি আইটি সেক্টর নিয়ে বিভিন্ন এক্সপেরিমেন্ট করতে পছন্দ করি। যেমন ওয়েব পেজ তৈরি করা, বিভিন্ন অ্যাপ তৈরি করা, অনলাইন রেডিও স্টেশন তৈরি করা, অনলাইন সংবাদপত্র তৈরি করা ইত্যাদি। আমাদের প্রকাশনা “পূর্বকন্ঠ” স্বাধীনতার চেতনায় একটি নিরপেক্ষ জাতীয় অনলাইন । পাঠক আমাদের সবচেয়ে বড় অনুপ্রেরনা। পূর্বকণ্ঠ কথা বলে বাঙালির আত্মপ্রত্যয়ী আহ্বান ও ত্যাগে অর্জিত স্বাধীনতার। কথা বলে স্বাধীনতার চেতনায় উদ্বুদ্ধ হতে। ছড়িয়ে দিতে এ চেতনা দেশের প্রত্যেক কোণে কোণে। আমরা রাষ্ট্রের আইন কানুন, রীতিনীতির প্রতি শ্রদ্ধাশীল। দেশপ্রেম ও রাষ্ট্রীয় আইন বিরোধী এবং বাঙ্গালীর আবহমান কালের সামাজিক সহনশীলতার বিপক্ষে পূর্বকন্ঠ কখনো সংবাদ প্রকাশ করে না। আমরা সকল ধর্মমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল, কোন ধর্মমত বা তাদের অনুসারীদের অনুভূতিতে আঘাত দিয়ে আমরা কিছু প্রকাশ করি না। আমাদের সকল প্রচেষ্টা পাঠকের সংবাদ চাহিদাকে কেন্দ্র করে। তাই পাঠকের যে কোনো মতামত আমরা সাদরে গ্রহন করব।

শ্রীমঙ্গলে পুলিশের অভিযান ১১ কেজি গাঁজাসহ বিপুল পরিমান চোলাই মদ ও তৈরীর সরঞ্জাম উদ্ধার

আপডেট : ০৭:৩৪:১৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৯

শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধি:মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল উপজেলার কালীঘাট ইউনিয়নের কালীঘাট চা বাগানের পুলিশের অভিযানে ১১ কেজি গাঁজাসহ বিপুল পরিমাণ চোলাই মদ ও মদ তৈরীর নানা সরঞ্জাম উদ্ধার করেছে পুলিশ।
সোমবার ৩০ সেপ্টেম্বর দুপুরের শ্রীমঙ্গল থানার ওসি (তদন্ত) সোহেল রানার নেতৃত্বে অন্যান্য অফিসারদের নিয়ে কালিঘাট চা বাগানের ৯নং লেবার লাইনে অভিযান চালিয়ে চোলাই মদ ও মদ তৈরীর বিভিন্ন সরঞ্জাম উদ্ধার করে শ্রীমঙ্গল থানা পুলিশ । এসময় পুলিশী অভিযানের খবর টের পেয়ে মদ তৈরীর কারিগরা দ্রুত সময়ের মধ্যে পালিয়ে যায়।
অন্যদিকে বিকেল সাড়ে তিনটায় শ্রীমঙ্গল থানার এস আই সুমন হাজরার নেতৃত্বে অপর একটি দল সঙ্গীয় পুলিশ ফোর্স নিয়ে উকিল বাড়ী সড়ক হয়ে একটি পিক আপ গাড়ীতে পাচার কালে চারটি প্যাকেটে ১১ কেজি গাঁজাসহ রাজনগর থানার কাটাজুরী গ্রামের রবীন্দ্র বৈদ্যর ছেলে নিমাই বৈদ্যকে আটক করে। পুলিশ জানায়,আটককৃত গাঁজা মৌলভীবাজারের রাজনগর উপজেলা থেকে পিকআপ ভর্তি করে ঢাকার উদ্দেশ্যে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গাঁজাসহ ওই পিকআপ আটক করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে।
শ্রীমঙ্গল থানার ওসি মো.আব্দুছ ছালেক জানান, তারা গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলার কালিঘাট ইউনিয়নের কালিঘাট চা বাগানের লেবার লাইনের পাশাপাশি (নাচ ঘরের পাশে) লালন চাষা, রঞ্জিত ভৌমিজ ও সন্তোষ তাঁতী’র বসত ঘরে অভিযান চালানো হয়। পুলিশী অভিযানের খবর টের তারা পালিয়ে যায়।
পরে পুলিশ তিন ঘরের বিভিন্ন কক্ষে তল্লাশী করে বিপুল পরিমান তৈরী চোলাই মদ ও মদ তৈরীর সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারকৃত মদের পরিমান প্রায় সাড়ে ৭শ লিটার। অপর একটি অভিযানে ১ কেজি গাঁজাসহ একজনকে আটক করা হয়েছে। তিনি জানান, তাদের বিরুদ্ধে মাদক আইনে মামলা দায়ের হবে এবং মাদকের বিরুদ্ধে পুলিশের অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানান।
মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে পুলিশের পৃথক অভিযানে ১১ কেজি গাঁজাসহ বিপুল পরিমাণ চোলাই মদ ও মদ তৈরীর সরঞ্জাম উদ্ধার করেছে পুলিশ।
সোমবার দুপুরের শ্রীমঙ্গল থানার ওসি (তদন্ত) সোহেল রানার নেতৃত্বে অন্যান্য অফিসারদের নিয়ে কালিঘাট চা বাগানের লেবার লাইনে অভিযান চালিয়ে চোলাই মদ ও মদ তৈরীর সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়। এসময় পুলিশী অভিযানের খবর টের পেয়ে মদ তৈরীর কারিগরা পালিয়ে যায়।
অন্যদিকে বিকেল সাড়ে তিনটায় শ্রীমঙ্গল থানার এস আই সুমন হাজরার নেতৃত্বে অপর একটি দল সঙ্গীয় পুলিশ ফোর্স নিয়ে উকিল বাড়ী সড়ক হয়ে একটি পিক আপ গাড়ীতে পাচার কালে চারটি প্যাকেটে ১১ কেজি গাঁজাসহ রাজনগর থানার কাটাজুরী গ্রামের রবীন্দ্র বৈদ্যর ছেলে নিমাই বৈদ্যকে আটক করে। পুলিশ জানায়,আটককৃত গাঁজা মৌলভীবাজারের রাজনগর উপজেলা থেকে পিকআপ ভর্তি করে ঢাকার উদ্দেশ্যে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গাঁজাসহ ওই পিকআপ আটক করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে।
শ্রীমঙ্গল থানার ওসি মো.আব্দুছ ছালেক জানান, তারা গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলার কালিঘাট ইউনিয়নের কালিঘাট চা বাগানের লেবার লাইনের পাশাপাশি (নাচ ঘরের পাশে) লালন চাষা, রঞ্জিত ভৌমিজ ও সন্তোষ তাঁতী’র বসত ঘরে অভিযান চালানো হয়। পুলিশী অভিযানের খবর টের তারা পালিয়ে যায়।
পরে পুলিশ তিন ঘরের বিভিন্ন কক্ষে তল্লাশী করে বিপুল পরিমান তৈরী চোলাই মদ ও মদ তৈরীর সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারকৃত মদের পরিমান প্রায় সাড়ে ৭শ লিটার। অপর একটি অভিযানে ১ কেজি গাঁজাসহ একজনকে আটক করা হয়েছে। তিনি জানান, তাদের বিরুদ্ধে মাদক আইনে মামলা দায়ের হবে এবং মাদকের বিরুদ্ধে পুলিশের অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানান। সম্পাদনা: সুমন