নেত্রকোনা ০৬:৪৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ০৪ মার্চ ২০২৪, ২১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

শ্রীবরদীতে বাড়ছে চুরি , আতঙ্কে পৌরবাসী

  • আপডেট : ০২:১২:৫৩ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৪ অগাস্ট ২০১৯
  • ১২২৯ বার পঠিত

মো. আব্দুল বাতেন,শ্রীবরদী (শেরপুর) সংবাদদাতা:

শ্রীবরদী পৌর শহরসহ আশেপাশের বিভিন্ন স্থানে চোর ও দুর্বৃত্তদের আনাগোনা বৃদ্ধি পেয়েছে। প্রায় প্রতিদিনই ঘটছে অনাকাক্সিক্ষত বিভিন্ন ঘটনা। এলাকাবাসী এমনটি জানিয়ে দ্রæত প্রশাসনের কার্যকর হস্তক্ষেপ দাবি করেছেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, শ্রীবরদী পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডের বিভিন্ন বাসা বাড়িতে দিনে-দুপুরে ও সন্ধা রাতে প্রতিদিনই ছোটখাটো চুরি সংঘটিত হচ্ছে। ছিচকে চোরের উপদ্রব বাড়ায় দুশ্চিন্তায় রয়েছেন গৃহমালিকরা। ঘরগৃহস্থলির মালামাল চুরির পাশাপাশি শহরের বিভিন্ন স্থানে বাইসাইকেলসহ নানান জিনিসপত্র চুরি যেন নিত্যনৈমেত্তিক ঘটনা হয়ে দাঁড়িয়েছে। এমন অভিযোগ ভুক্তভোগীসহ এলাকাবাসীর।

স্থানীয় সূত্র মতে, গত বৃহস্পতিবার রাতে শ্রীবরদী সরকারি কলেজের উত্তর পাশে নেট জালের ব্যবসায়ী হাবিবুর রহমান তার ভারাটিয়া বাসার মেইন ফটক খুলে এক যুবক চুরি করার জন্য বাড়িতে প্রবেশ করে পাকের ঘরে লুকিয়ে থাকে। ভাড়াটিয়া হাবিবুর রহমান রাত সাড়ে দশটার সময় বাজার থেকে বাড়িতে এসে দেখে বাউন্ডারি গেইটের লক খোলা।

এ অবস্থায় ঘরের বারান্দায় আলো জ¦ালানোর জন্য বৈদ্যুতিক বাতির সুইচ দিতে গেলে পেছন থেকে এসে কে বা কারা ভাড়াটিয়া ব্যবসায়ী হাবিবুরকে অতর্কিতভাবে ধারালো অস্ত্র দিয়ে হাতে, পিঠে, ঘাড়ে ও মাথায় আঘাত করে গুরুতর আহত করে।

হাবিবুর চোরকে জাপটে ধরে হাতের আঙ্গুলে কামড় দিলেও ছুড়িকাঘাত করে চোর পালিয়ে যায়। হাবিবুর রহমান শ্রীবরদী সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন।

গত কয়েক দিনে আগেও হাবিবুর রহমানের বাসায় দিনের বেলায় চুরি সংঘটিত হয়েছে। একই মহল্লায় সাংবাদিক তসলিম কবির বাবুর গেট খুলে দরজা ভেঙে ঘরে প্রবেশ করে কাঠের আলমারি ভেঙ্গে স্বর্ণের গহনা, এলইডি টেলিভিশনসহ সাড়ে তিন লাখ টাকার মালামাল চুরি করে নিয়ে যায়।

এভাবে খালেক বিএসসি, আবু ছালেহ, আসাদ মাষ্টার, শামিম মাষ্টারের বাসা সহ ৪নং ওয়ার্ডের প্রায় সব বাসায় চুরি সংঘটিত হয়েছে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে কিছুটা তৎপরতা দেখালেও গত কয়েক মাস অতিবাহিত হলেও আজ পর্যন্ত পুলিশ চুরিকৃত মালামাল উদ্ধার বা কাউকে গ্রেফতার করতে পারে নাই।

শ্রীবরদী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রুহুল আমিন তালুকদার সংবাদ পেয়ে হাসপাতালে আহত হাবিবুর রহমানের চিকিৎসার খোজ খবর নেন। তিনি বলেন পুলিশি টহল ও নজরদাড়ি বাড়ানো হয়েছে। ঘটনার সাথে জড়িতদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। চুরির কাজে ব্যবহৃত ছুরি উদ্ধার করা হয়েছে।

আপনার মন্তব্য লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষণ করুন

প্রকাশক ও সম্পাদক সম্পর্কে-

শফিকুল আলম শাহীন

আমি একজন ওয়েব ডেভেলপার ও সাংবাদিক। আমি দৈনিক ইত্তেফাক পত্রিকায় পূর্বধলা উপজেলা সংবাদদাতা হিসেবে কর্মরত । সেইসাথে পূর্বকণ্ঠ অনলাইন প্রকাশনার সম্পাদক ও প্রকাশক। আমার বর্তমান ঠিকানা স্টেশন রোড, পূর্বধলা, নেত্রকোনা। আমি জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে ইতিবাচক। আমার ধর্ম ইসলাম। আমি করতে, দেখতে এবং অভিজ্ঞতা করতে পছন্দ করি এমন অনেক কিছু আছে। আমি আইটি সেক্টর নিয়ে বিভিন্ন এক্সপেরিমেন্ট করতে পছন্দ করি। যেমন ওয়েব পেজ তৈরি করা, বিভিন্ন অ্যাপ তৈরি করা, রেডিও স্টেশন তৈরি করা, অনলাইন সংবাদপত্র তৈরি করা ইত্যাদি। প্রয়োজনে: ০১৭১৩৫৭৩৫০২
জনপ্রিয়

শ্রীবরদীতে বাড়ছে চুরি , আতঙ্কে পৌরবাসী

আপডেট : ০২:১২:৫৩ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৪ অগাস্ট ২০১৯

মো. আব্দুল বাতেন,শ্রীবরদী (শেরপুর) সংবাদদাতা:

শ্রীবরদী পৌর শহরসহ আশেপাশের বিভিন্ন স্থানে চোর ও দুর্বৃত্তদের আনাগোনা বৃদ্ধি পেয়েছে। প্রায় প্রতিদিনই ঘটছে অনাকাক্সিক্ষত বিভিন্ন ঘটনা। এলাকাবাসী এমনটি জানিয়ে দ্রæত প্রশাসনের কার্যকর হস্তক্ষেপ দাবি করেছেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, শ্রীবরদী পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডের বিভিন্ন বাসা বাড়িতে দিনে-দুপুরে ও সন্ধা রাতে প্রতিদিনই ছোটখাটো চুরি সংঘটিত হচ্ছে। ছিচকে চোরের উপদ্রব বাড়ায় দুশ্চিন্তায় রয়েছেন গৃহমালিকরা। ঘরগৃহস্থলির মালামাল চুরির পাশাপাশি শহরের বিভিন্ন স্থানে বাইসাইকেলসহ নানান জিনিসপত্র চুরি যেন নিত্যনৈমেত্তিক ঘটনা হয়ে দাঁড়িয়েছে। এমন অভিযোগ ভুক্তভোগীসহ এলাকাবাসীর।

স্থানীয় সূত্র মতে, গত বৃহস্পতিবার রাতে শ্রীবরদী সরকারি কলেজের উত্তর পাশে নেট জালের ব্যবসায়ী হাবিবুর রহমান তার ভারাটিয়া বাসার মেইন ফটক খুলে এক যুবক চুরি করার জন্য বাড়িতে প্রবেশ করে পাকের ঘরে লুকিয়ে থাকে। ভাড়াটিয়া হাবিবুর রহমান রাত সাড়ে দশটার সময় বাজার থেকে বাড়িতে এসে দেখে বাউন্ডারি গেইটের লক খোলা।

এ অবস্থায় ঘরের বারান্দায় আলো জ¦ালানোর জন্য বৈদ্যুতিক বাতির সুইচ দিতে গেলে পেছন থেকে এসে কে বা কারা ভাড়াটিয়া ব্যবসায়ী হাবিবুরকে অতর্কিতভাবে ধারালো অস্ত্র দিয়ে হাতে, পিঠে, ঘাড়ে ও মাথায় আঘাত করে গুরুতর আহত করে।

হাবিবুর চোরকে জাপটে ধরে হাতের আঙ্গুলে কামড় দিলেও ছুড়িকাঘাত করে চোর পালিয়ে যায়। হাবিবুর রহমান শ্রীবরদী সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন।

গত কয়েক দিনে আগেও হাবিবুর রহমানের বাসায় দিনের বেলায় চুরি সংঘটিত হয়েছে। একই মহল্লায় সাংবাদিক তসলিম কবির বাবুর গেট খুলে দরজা ভেঙে ঘরে প্রবেশ করে কাঠের আলমারি ভেঙ্গে স্বর্ণের গহনা, এলইডি টেলিভিশনসহ সাড়ে তিন লাখ টাকার মালামাল চুরি করে নিয়ে যায়।

এভাবে খালেক বিএসসি, আবু ছালেহ, আসাদ মাষ্টার, শামিম মাষ্টারের বাসা সহ ৪নং ওয়ার্ডের প্রায় সব বাসায় চুরি সংঘটিত হয়েছে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে কিছুটা তৎপরতা দেখালেও গত কয়েক মাস অতিবাহিত হলেও আজ পর্যন্ত পুলিশ চুরিকৃত মালামাল উদ্ধার বা কাউকে গ্রেফতার করতে পারে নাই।

শ্রীবরদী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রুহুল আমিন তালুকদার সংবাদ পেয়ে হাসপাতালে আহত হাবিবুর রহমানের চিকিৎসার খোজ খবর নেন। তিনি বলেন পুলিশি টহল ও নজরদাড়ি বাড়ানো হয়েছে। ঘটনার সাথে জড়িতদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। চুরির কাজে ব্যবহৃত ছুরি উদ্ধার করা হয়েছে।