নেত্রকোনা ০৫:৫৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ০৪ মার্চ ২০২৪, ২১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

রাঙ্গামাটি ত্রিপুরা স্টুডেন্টস ফোরামের উদ্যোগে কিল্লামুড়া গ্রামে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ

  • আপডেট : ০৭:৩০:৩০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ জানুয়ারী ২০২০
  • ১২১২ বার পঠিত

মহুয়া জান্নাত মনি,রাঙ্গামাটি প্রতিনিধি:
সরস্বতী পুজো উপলক্ষে রাঙ্গামাটি জেলা ত্রিপুরা স্টুডেন্টস ফোরামের উদ্যোগে কিল্লামুড়া ত্রিপুরা গ্রামে অসহায় ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকালে ত্রিপুরা স্টুডেন্টস ফোরাম এর মূলনীতি-ঐক্য, শিক্ষা, প্রগতি, এই শ্লোগানকে বুকে ধারণ করে অসহায় ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে বিনামূল্যে এইসব বই ও শিক্ষা উপকরণ বিতরণ করেন রাঙ্গামাটি ত্রিপুরা কল্যাণ ফাউন্ডেশনের সাধারণ সম্পাদক ঝিনুক ত্রিপুরা।

এসময় অন্যান্যেদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, রাঙ্গামাটি প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রভাষক সজিব ত্রিপুরা, কাউখালী কলেজের প্রভাষক রাজন ত্রিপুরা, কিল্লামুড়ার মহিলা ইউপি সদস্য জীবনেশ্বরী ত্রিপুরা, কিল্লামুড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের স্কুল পরিচালনা কমিটি সভাপতি মাধুরী ত্রিপুরা, ত্রিপুরা স্টুডেন্ট ফোরামের সাধারণ সম্পাদক বিকাশ ত্রিপুরা, মহিলা কারবারী নির্মরা ত্রিপুরা প্রমুখ।

বই বিতরণে প্রধান অতিথির বক্তব্যে রাঙ্গামাটি ত্রিপুরা কল্যাণ ফাউন্ডেশনের সাধারণ সম্পাদক ঝিনুক ত্রিপুরা বলেন, পড়ালেখা ছাড়া কোন সম্প্রদায় উন্নয়নের শিকরে যেতে পারে না। তাই পড়া লেখার মাধ্যমে সমাজে প্রত্যেকে এগিয়ে যেতে হবে। আর আমাদের প্রত্যেকটি ত্রিপুরা সম্প্রদায়ের গ্রামে শিক্ষার আলোয় আলোকিত করতে এইসব বই ও শিক্ষা উপকরণ বিতরনের মাধ্যমে।

তিনি বলেন, ত্রিপুরা স্টুডেন্টস ফোরাম উদ্যোগে যে বই ও শিক্ষা উপকরণ বিতরণ করছে তা খুবই মহৎকাজ। তাই এই কাজ আমাদের কাছে স্বরনীয় হয়ে থাকবে। যে যত পড়া লেখা করবে সে তত সমাজে আলোকিত করে ত্রিপুরা সম্প্রদায়ের মুখ উজ্বল করবে। আর এটাই হোক আমাদের মূল লক্ষ্য।

তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে স্বাগত জানিয়ে বলেন, আগে প্রাথমিক স্তরে অর্ধেক বই বিনা মূল্যে দেওয়া হতো। বাকি বই কিনে পড়তে হতো। আর মাধ্যমিক স্তরে সব বই কিনতে হতো। তখন শিক্ষার্থীদের বই পেতেই বছরের কয়েক মাস চলে যেত। অনেকে সামর্থ্যের অভাবে কিনতেও পারত না। ২০১০ সাল থেকে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্তরে সব শিক্ষার্থীকে বছরের শুরুতে বিনা মূল্যে নতুন পাঠ্যবই দেওয়া শুরু করে বর্তমান সরকারের প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা। বছরের শুরুতে খালী হাতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে গিয়ে নতুন বই হাতে নিয়ে খুশি হয়ে বাড়ি ফেরে শিক্ষার্থীরা। এ নিয়ে বছরের শুরুর দিন দেশজুড়ে চলে উৎসবের আমেজ। এতে করে বর্তমানে শিক্ষার্থীরা আনন্দের সঙ্গে পড়ালেখা শিখতে পারছে।

পরে কিল্লামুড়া ত্রিপুরা গ্রামের অসহায় ১২০জন ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ করেন অতিথিবৃন্দরা।

আপনার মন্তব্য লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষণ করুন

প্রকাশক ও সম্পাদক সম্পর্কে-

শফিকুল আলম শাহীন

আমি একজন ওয়েব ডেভেলপার ও সাংবাদিক। আমি দৈনিক ইত্তেফাক পত্রিকায় পূর্বধলা উপজেলা সংবাদদাতা হিসেবে কর্মরত । সেইসাথে পূর্বকণ্ঠ অনলাইন প্রকাশনার সম্পাদক ও প্রকাশক। আমার বর্তমান ঠিকানা স্টেশন রোড, পূর্বধলা, নেত্রকোনা। আমি জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে ইতিবাচক। আমার ধর্ম ইসলাম। আমি করতে, দেখতে এবং অভিজ্ঞতা করতে পছন্দ করি এমন অনেক কিছু আছে। আমি আইটি সেক্টর নিয়ে বিভিন্ন এক্সপেরিমেন্ট করতে পছন্দ করি। যেমন ওয়েব পেজ তৈরি করা, বিভিন্ন অ্যাপ তৈরি করা, রেডিও স্টেশন তৈরি করা, অনলাইন সংবাদপত্র তৈরি করা ইত্যাদি। প্রয়োজনে: ০১৭১৩৫৭৩৫০২
জনপ্রিয়

রাঙ্গামাটি ত্রিপুরা স্টুডেন্টস ফোরামের উদ্যোগে কিল্লামুড়া গ্রামে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ

আপডেট : ০৭:৩০:৩০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ জানুয়ারী ২০২০

মহুয়া জান্নাত মনি,রাঙ্গামাটি প্রতিনিধি:
সরস্বতী পুজো উপলক্ষে রাঙ্গামাটি জেলা ত্রিপুরা স্টুডেন্টস ফোরামের উদ্যোগে কিল্লামুড়া ত্রিপুরা গ্রামে অসহায় ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকালে ত্রিপুরা স্টুডেন্টস ফোরাম এর মূলনীতি-ঐক্য, শিক্ষা, প্রগতি, এই শ্লোগানকে বুকে ধারণ করে অসহায় ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে বিনামূল্যে এইসব বই ও শিক্ষা উপকরণ বিতরণ করেন রাঙ্গামাটি ত্রিপুরা কল্যাণ ফাউন্ডেশনের সাধারণ সম্পাদক ঝিনুক ত্রিপুরা।

এসময় অন্যান্যেদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, রাঙ্গামাটি প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রভাষক সজিব ত্রিপুরা, কাউখালী কলেজের প্রভাষক রাজন ত্রিপুরা, কিল্লামুড়ার মহিলা ইউপি সদস্য জীবনেশ্বরী ত্রিপুরা, কিল্লামুড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের স্কুল পরিচালনা কমিটি সভাপতি মাধুরী ত্রিপুরা, ত্রিপুরা স্টুডেন্ট ফোরামের সাধারণ সম্পাদক বিকাশ ত্রিপুরা, মহিলা কারবারী নির্মরা ত্রিপুরা প্রমুখ।

বই বিতরণে প্রধান অতিথির বক্তব্যে রাঙ্গামাটি ত্রিপুরা কল্যাণ ফাউন্ডেশনের সাধারণ সম্পাদক ঝিনুক ত্রিপুরা বলেন, পড়ালেখা ছাড়া কোন সম্প্রদায় উন্নয়নের শিকরে যেতে পারে না। তাই পড়া লেখার মাধ্যমে সমাজে প্রত্যেকে এগিয়ে যেতে হবে। আর আমাদের প্রত্যেকটি ত্রিপুরা সম্প্রদায়ের গ্রামে শিক্ষার আলোয় আলোকিত করতে এইসব বই ও শিক্ষা উপকরণ বিতরনের মাধ্যমে।

তিনি বলেন, ত্রিপুরা স্টুডেন্টস ফোরাম উদ্যোগে যে বই ও শিক্ষা উপকরণ বিতরণ করছে তা খুবই মহৎকাজ। তাই এই কাজ আমাদের কাছে স্বরনীয় হয়ে থাকবে। যে যত পড়া লেখা করবে সে তত সমাজে আলোকিত করে ত্রিপুরা সম্প্রদায়ের মুখ উজ্বল করবে। আর এটাই হোক আমাদের মূল লক্ষ্য।

তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে স্বাগত জানিয়ে বলেন, আগে প্রাথমিক স্তরে অর্ধেক বই বিনা মূল্যে দেওয়া হতো। বাকি বই কিনে পড়তে হতো। আর মাধ্যমিক স্তরে সব বই কিনতে হতো। তখন শিক্ষার্থীদের বই পেতেই বছরের কয়েক মাস চলে যেত। অনেকে সামর্থ্যের অভাবে কিনতেও পারত না। ২০১০ সাল থেকে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্তরে সব শিক্ষার্থীকে বছরের শুরুতে বিনা মূল্যে নতুন পাঠ্যবই দেওয়া শুরু করে বর্তমান সরকারের প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা। বছরের শুরুতে খালী হাতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে গিয়ে নতুন বই হাতে নিয়ে খুশি হয়ে বাড়ি ফেরে শিক্ষার্থীরা। এ নিয়ে বছরের শুরুর দিন দেশজুড়ে চলে উৎসবের আমেজ। এতে করে বর্তমানে শিক্ষার্থীরা আনন্দের সঙ্গে পড়ালেখা শিখতে পারছে।

পরে কিল্লামুড়া ত্রিপুরা গ্রামের অসহায় ১২০জন ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ করেন অতিথিবৃন্দরা।