নেত্রকোনা ০৬:২৮ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৪ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

বিরামপুর প্রেসক্লাবের দ্বি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত

বিরামপুর প্রেসক্লাবের দ্বি-বার্ষিক (২০২০-২০২১) কার্যনির্বাহী কমিটির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন বিজয় টিভির বিরামপুর প্রতিনিধি শাহিনুর আলম। সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন যুগান্তর বিরামপুর প্রতিনিধি মশিহুর রহমান। বৃহস্পতিবার (৩০ জানুয়ারি) পুরাতন মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবনে সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত চলে ভোটগ্রহণ।
ভোট গণনা শেষে দুপুর ২ ঘটিকায় বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার উপাধ্যক্ষ মো. মেসবাউল হক। সভাপতি পদে ১৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন শাহিনুর আলম। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আকরাম হোসেন পেয়েছেন ১০ ভোট। সাধারণ সম্পাদক পদে ১৯ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন মশিহুর রহমান। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মাহমুদুল হক মানিক পেয়েছেন ১১ ভোট। নির্বাচনে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক ছাড়া যারা নির্বাচিত হয়েছেন, তারা হলেন, সহ-সভাপতি দুটি পদে জালাল উদ্দীন রুমী ও মাসুদ রানা।
যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদে আবু সাঈদ ১৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী একলাছুর রহমান পেয়েছেন ১৪ ভোট। নির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় সাংগঠনিক সম্পাদক হিসেবে কালের কন্ঠের বিরামপুর প্রতিনিধি মাহবুবুর রহমান, কোষাধ্যক্ষ ও দপ্তর সম্পাদক হিসেবে বজ্রশক্তি প্রতিনিধি শাহ আলম, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হিসেবে উত্তরবঙ্গ প্রতিনিধি সেকেন্দার আলী।
ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক হিসেবে আমার সংবাদ প্রতিনিধি মাজহারুল ইসলাম ও কার্যনির্বাহী সদস্য পদে আজাহার ইমাম, ডক্টর এনামুল হক, সামিউল আলম, আব্দুর রশীদ, আব্দুর রউফ, মাহাবুর রহমান ও পবন কুমার শীল নির্বাচিত হন। প্রধান নির্বাচন কমিশনার উপাধ্যক্ষ মো. মেসবাউল হক বলেন, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে। একটি বুথে ৩৫ জন ভোটারের মধ্যে ৩৩ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন। নির্বাচন অবাধ সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন করতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা নিয়োজিত ছিলেন।

আপনার মন্তব্য লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষণ করুন

প্রকাশক ও সম্পাদক সম্পর্কে-

শফিকুল আলম শাহীন

আমি একজন ওয়েব ডেভেলপার ও সাংবাদিক। আমি দৈনিক ইত্তেফাক পত্রিকায় পূর্বধলা উপজেলা সংবাদদাতা হিসেবে কর্মরত । সেইসাথে পূর্বকণ্ঠ অনলাইন প্রকাশনার সম্পাদক ও প্রকাশক। আমার বর্তমান ঠিকানা স্টেশন রোড, পূর্বধলা, নেত্রকোনা। আমি জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে ইতিবাচক। আমার ধর্ম ইসলাম। আমি করতে, দেখতে এবং অভিজ্ঞতা করতে পছন্দ করি এমন অনেক কিছু আছে। আমি আইটি সেক্টর নিয়ে বিভিন্ন এক্সপেরিমেন্ট করতে পছন্দ করি। যেমন ওয়েব পেজ তৈরি করা, বিভিন্ন অ্যাপ তৈরি করা, রেডিও স্টেশন তৈরি করা, অনলাইন সংবাদপত্র তৈরি করা ইত্যাদি। প্রয়োজনে: ০১৭১৩৫৭৩৫০২

বিরামপুর প্রেসক্লাবের দ্বি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত

আপডেট : ০৮:৩১:১৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৩১ জানুয়ারী ২০২০
বিরামপুর প্রেসক্লাবের দ্বি-বার্ষিক (২০২০-২০২১) কার্যনির্বাহী কমিটির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন বিজয় টিভির বিরামপুর প্রতিনিধি শাহিনুর আলম। সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন যুগান্তর বিরামপুর প্রতিনিধি মশিহুর রহমান। বৃহস্পতিবার (৩০ জানুয়ারি) পুরাতন মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবনে সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত চলে ভোটগ্রহণ।
ভোট গণনা শেষে দুপুর ২ ঘটিকায় বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার উপাধ্যক্ষ মো. মেসবাউল হক। সভাপতি পদে ১৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন শাহিনুর আলম। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আকরাম হোসেন পেয়েছেন ১০ ভোট। সাধারণ সম্পাদক পদে ১৯ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন মশিহুর রহমান। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মাহমুদুল হক মানিক পেয়েছেন ১১ ভোট। নির্বাচনে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক ছাড়া যারা নির্বাচিত হয়েছেন, তারা হলেন, সহ-সভাপতি দুটি পদে জালাল উদ্দীন রুমী ও মাসুদ রানা।
যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদে আবু সাঈদ ১৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী একলাছুর রহমান পেয়েছেন ১৪ ভোট। নির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় সাংগঠনিক সম্পাদক হিসেবে কালের কন্ঠের বিরামপুর প্রতিনিধি মাহবুবুর রহমান, কোষাধ্যক্ষ ও দপ্তর সম্পাদক হিসেবে বজ্রশক্তি প্রতিনিধি শাহ আলম, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হিসেবে উত্তরবঙ্গ প্রতিনিধি সেকেন্দার আলী।
ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক হিসেবে আমার সংবাদ প্রতিনিধি মাজহারুল ইসলাম ও কার্যনির্বাহী সদস্য পদে আজাহার ইমাম, ডক্টর এনামুল হক, সামিউল আলম, আব্দুর রশীদ, আব্দুর রউফ, মাহাবুর রহমান ও পবন কুমার শীল নির্বাচিত হন। প্রধান নির্বাচন কমিশনার উপাধ্যক্ষ মো. মেসবাউল হক বলেন, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে। একটি বুথে ৩৫ জন ভোটারের মধ্যে ৩৩ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন। নির্বাচন অবাধ সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন করতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা নিয়োজিত ছিলেন।