নেত্রকোনা ০৭:০৪ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৪ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

পূর্বধলার সৈয়দ আরিফুজ্জামান জাতীয় পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ যুব সংগঠক নির্বাচিত

সৈয়দ আরিফুজ্জামান একজন সংগঠক। জাতীয় পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ যুব সংগঠক । ৩০ জানুয়ারি (বৃহস্পতিবার) তেজঁগাওস্থ প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সম্মেলন কেন্দ্রে ঘোষিত হয় ২০১৯ সালের জাতীয় পর্যায়ের শ্রেষ্ঠ যুব সংগঠকের এই মর্যাদাপূর্ণ সম্মাননার। যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের অধীন যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর এর আয়োজক। আরবান এর প্রতিষ্ঠাতা ও সংগঠক সৈয়দ আরিফুজ্জামানের হাতে এই মর্যাদাপূর্ণ সম্মাননা স্মারকটি তুলে দেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
নেত্রকোনা জেলার পূর্বধলা উপজেলায় স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন আরবান প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে বিশেষ করে যুবদের কল্যাণে অসামান্য অবদান রাখার স্বীকৃতি স্বরূপ তার এই অর্জন। তথ্য ও জ্ঞান ভিত্তিক সমাজ বিনির্মাণের অঙ্গীকার নিয়ে ২০০২ সালে সৈয়দ আরিফুজ্জামান আরবান প্রতিষ্ঠা করেন। পরবর্তীতে প্রতিষ্ঠা করেন প্রযুক্তিভিত্তিক প্রতিষ্ঠান আরবান আইটি, শিক্ষার ডিজিটাল রূপান্তরে আরবান একাডেমি, অনলাইন ভিত্তিক নিউজ পোর্টাল আজকের আরবান ও হস্ত শিল্পের প্রসারে চালু করেন ই-কমার্স ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান আরবান ক্রাফট। প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই সমৃদ্ধ সমাজ বির্নিমাণে সৈয়দ আরিফুজ্জামান আন্তর্জাতিক সংস্থা, উন্নয়ন সহযোগী, বিশ্ববিদ্যালয়, গবেষণা প্রতিষ্ঠান ও বাংলাদেশ সরকার এর বিভিন্ন প্রকল্পের মাধ্যমে বাস্তবায়ন করেন শিক্ষা, স্বাস্থ্য সেবা, কৃষি, নারীর ক্ষমতায়ন, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি, সামাজিক বনায়ন, প্রশিক্ষণ, উদ্যোক্তা উন্নয়নসহ প্রচুর উন্নয়ন মূলক কার্যক্রম।
দীর্ঘ পথ পরিক্রমায় তার কল্যানমূখী নানান উদ্যোগ আর বলিষ্ঠ সাংগঠনিক দক্ষতার স্বীকৃতি স্বরূপ ইতোমধ্যে লাভ করেন জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলের বেশ ক’টি সম্মানজনক পুরস্কার। যার মধ্যে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের আইসিটি ডিভিশন থেকে ন্যাশনাল ইনোভেশন এ্যাওয়ার্ড, আইসিটি বিষয়ক মন্থন এ্যাওয়ার্ড, বিশ্ব ব্যাংক ও মাইক্রোসফট এর যৌথ আয়োজনে ইয়োথ সল্যুউশন এ্যাওয়ার্ড, শেরে-ই-বাংলা এ্যাওয়ার্ড ও শিক্ষার ডিজিটাল রূপান্তরে অবদান রাখার স্বীকৃতি স্বরূপ বিজয় ডিজিটাল ও নেটিজেন আইটি’র উদ্যোগে জাতীয় পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ উদ্যোক্তার এ্যাওয়ার্ড অন্যতম।
যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী মোঃ জাহিদ হাসান রাসেল এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ আখতার হোসেন , যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মোঃ আখতারুজ্জামান খান কবির প্রমুখ। অনুষ্ঠানে বিভিন্ন ক্যাটাগরীতে মোট সাতাশ জনকে ক্রেষ্ট, সনদ ও আর্থিক পুরষ্কারের চেক প্রদান করা হয়। পুরস্কার প্রাপ্ত যুব সংগঠক ও আত্মকর্মীদের উদ্যেশ্যে প্রধান অতিথির বক্তব্যে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন “যুবকরাই উন্নয়নের মূলভিত্তি। তিনি যুবদের উন্নয়নে সকল ধরণের সহায়তা অব্যাহত রাখার প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন। তিনি তার বক্তব্যে বলেন পুরস্কার প্রাপ্ত উদ্যোক্তাদের এই স্বীকৃতি অন্যান্য তরুণদের অনুপ্রেরণা যোগাবে।

আপনার মন্তব্য লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষণ করুন

প্রকাশক ও সম্পাদক সম্পর্কে-

শফিকুল আলম শাহীন

আমি একজন ওয়েব ডেভেলপার ও সাংবাদিক। আমি দৈনিক ইত্তেফাক পত্রিকায় পূর্বধলা উপজেলা সংবাদদাতা হিসেবে কর্মরত । সেইসাথে পূর্বকণ্ঠ অনলাইন প্রকাশনার সম্পাদক ও প্রকাশক। আমার বর্তমান ঠিকানা স্টেশন রোড, পূর্বধলা, নেত্রকোনা। আমি জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে ইতিবাচক। আমার ধর্ম ইসলাম। আমি করতে, দেখতে এবং অভিজ্ঞতা করতে পছন্দ করি এমন অনেক কিছু আছে। আমি আইটি সেক্টর নিয়ে বিভিন্ন এক্সপেরিমেন্ট করতে পছন্দ করি। যেমন ওয়েব পেজ তৈরি করা, বিভিন্ন অ্যাপ তৈরি করা, রেডিও স্টেশন তৈরি করা, অনলাইন সংবাদপত্র তৈরি করা ইত্যাদি। প্রয়োজনে: ০১৭১৩৫৭৩৫০২

পূর্বধলার সৈয়দ আরিফুজ্জামান জাতীয় পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ যুব সংগঠক নির্বাচিত

আপডেট : ০৮:৪৩:০২ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ জানুয়ারী ২০২০
সৈয়দ আরিফুজ্জামান একজন সংগঠক। জাতীয় পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ যুব সংগঠক । ৩০ জানুয়ারি (বৃহস্পতিবার) তেজঁগাওস্থ প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সম্মেলন কেন্দ্রে ঘোষিত হয় ২০১৯ সালের জাতীয় পর্যায়ের শ্রেষ্ঠ যুব সংগঠকের এই মর্যাদাপূর্ণ সম্মাননার। যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের অধীন যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর এর আয়োজক। আরবান এর প্রতিষ্ঠাতা ও সংগঠক সৈয়দ আরিফুজ্জামানের হাতে এই মর্যাদাপূর্ণ সম্মাননা স্মারকটি তুলে দেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
নেত্রকোনা জেলার পূর্বধলা উপজেলায় স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন আরবান প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে বিশেষ করে যুবদের কল্যাণে অসামান্য অবদান রাখার স্বীকৃতি স্বরূপ তার এই অর্জন। তথ্য ও জ্ঞান ভিত্তিক সমাজ বিনির্মাণের অঙ্গীকার নিয়ে ২০০২ সালে সৈয়দ আরিফুজ্জামান আরবান প্রতিষ্ঠা করেন। পরবর্তীতে প্রতিষ্ঠা করেন প্রযুক্তিভিত্তিক প্রতিষ্ঠান আরবান আইটি, শিক্ষার ডিজিটাল রূপান্তরে আরবান একাডেমি, অনলাইন ভিত্তিক নিউজ পোর্টাল আজকের আরবান ও হস্ত শিল্পের প্রসারে চালু করেন ই-কমার্স ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান আরবান ক্রাফট। প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই সমৃদ্ধ সমাজ বির্নিমাণে সৈয়দ আরিফুজ্জামান আন্তর্জাতিক সংস্থা, উন্নয়ন সহযোগী, বিশ্ববিদ্যালয়, গবেষণা প্রতিষ্ঠান ও বাংলাদেশ সরকার এর বিভিন্ন প্রকল্পের মাধ্যমে বাস্তবায়ন করেন শিক্ষা, স্বাস্থ্য সেবা, কৃষি, নারীর ক্ষমতায়ন, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি, সামাজিক বনায়ন, প্রশিক্ষণ, উদ্যোক্তা উন্নয়নসহ প্রচুর উন্নয়ন মূলক কার্যক্রম।
দীর্ঘ পথ পরিক্রমায় তার কল্যানমূখী নানান উদ্যোগ আর বলিষ্ঠ সাংগঠনিক দক্ষতার স্বীকৃতি স্বরূপ ইতোমধ্যে লাভ করেন জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলের বেশ ক’টি সম্মানজনক পুরস্কার। যার মধ্যে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের আইসিটি ডিভিশন থেকে ন্যাশনাল ইনোভেশন এ্যাওয়ার্ড, আইসিটি বিষয়ক মন্থন এ্যাওয়ার্ড, বিশ্ব ব্যাংক ও মাইক্রোসফট এর যৌথ আয়োজনে ইয়োথ সল্যুউশন এ্যাওয়ার্ড, শেরে-ই-বাংলা এ্যাওয়ার্ড ও শিক্ষার ডিজিটাল রূপান্তরে অবদান রাখার স্বীকৃতি স্বরূপ বিজয় ডিজিটাল ও নেটিজেন আইটি’র উদ্যোগে জাতীয় পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ উদ্যোক্তার এ্যাওয়ার্ড অন্যতম।
যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী মোঃ জাহিদ হাসান রাসেল এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ আখতার হোসেন , যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মোঃ আখতারুজ্জামান খান কবির প্রমুখ। অনুষ্ঠানে বিভিন্ন ক্যাটাগরীতে মোট সাতাশ জনকে ক্রেষ্ট, সনদ ও আর্থিক পুরষ্কারের চেক প্রদান করা হয়। পুরস্কার প্রাপ্ত যুব সংগঠক ও আত্মকর্মীদের উদ্যেশ্যে প্রধান অতিথির বক্তব্যে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন “যুবকরাই উন্নয়নের মূলভিত্তি। তিনি যুবদের উন্নয়নে সকল ধরণের সহায়তা অব্যাহত রাখার প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন। তিনি তার বক্তব্যে বলেন পুরস্কার প্রাপ্ত উদ্যোক্তাদের এই স্বীকৃতি অন্যান্য তরুণদের অনুপ্রেরণা যোগাবে।