নেত্রকোনা ০২:৩১ অপরাহ্ন, রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ৮ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পূর্বধলায় মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবীতে মানববন্ধন

  • আপডেট : ০৫:৫২:৪৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
  • ৫২

পূর্বধলায় মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবীতে মানববন্ধ
নেত্রকোনার পূর্বধলায় গৃহবধুকে শ্লীলতাহানি, বসতবাড়ি দখল ও মারধরের ঘটনায় দায়ীদের শাস্তি ও ভূমি অফিসের সার্ভেয়ার কতৃর্ক ২৩ জনের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী।

আজ রোববার (১৮ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে বিশকাকুনি ইউনিয়নের নৈগাঁও গ্রামে এ মানবন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।,
আধঘণ্টাব্যাপী অনুষ্ঠিত মানবন্ধনে প্রায় দুই শতাধিক নারী-পুরুষ অংশগ্রহণ করেন।

এসময় বক্তব্য রাখেন, ভুক্তভোগী হোরে মদিনা, মুক্তিযোদ্ধা সন্তান আসমা বেগম, মামলার আসামি মুক্তিযোদ্ধা সন্তান মো. হামিদুল ইসলাম, মো. হাবিবুর রহমান, জাহাঙ্গীর মল্লিক প্রমুখ।

বক্তরা ও ভুক্তভোগীগন বলেন, গত ৮ ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার বিকাল সোয়া চারটার ঘ দিকে হোরে মদিনার স্বামী শাহীন দিনমজুরের কাজে চলে গেলে উপজেলা ভূমি অফিসের সার্ভেয়ার মোঃ হাদিউল ইসলাম স্থানীয় ইউপি সদস্য সেলিম সরকারকে নিয়ে মোটরসাইকেল যুগে উপস্থিত হয়ে কাউকে কোন কিছু জিজ্ঞেস না করে একটি বল ফিতা দিয়ে মাপপামাপি শুরু করেন।

এক পর্যায়ে বসতঘরের মাঝখানে একটি বাঁশের কোটি স্থাপন করে সার্ভেয়ার অন্যান্যদের হুকুম দেয় খুটির বরাবর পশ্চিম পাশের জায়গার ঘর ভেঙে ফেলার জন্য।,

ঘরের বেড়া ভাঙতে গেলে মদিনা ফিরাতে গেলে হাদিউল ইসলাম তাকে ধাক্কা দিয়ে মাটিতে ফেলে দেয় এবং শরীরের কাপড়-চোপড় টেনে খুলে অর্ধ উলঙ্গ করে শ্লীলতাহানির ঘটনা ঘটায়। ঘরের পশ্চিম পাশে টিনের বেড়া ভাঙ্গা শুরু করলে উঠে সেখানে ফেরাতে গেলে ঘাড় ধাক্কা দিয়ে শরীরের নানা স্থানে কিল ঘুসি নীলা ফুলা জখম করে। ঘরের বেড়া ভেঙে ২০ হাজার টাকার ক্ষতি সাধন করে।,

পরবর্তীতে স্থানীয় লোকজন এসে আটক করে জিজ্ঞেস করলে হাদিউল ইসলাম সরকারি সার্ভেয়ার বলে পরিচয় দেয়। ঐদিন রাতে মিথ্যা ঘটনা সাজিয়ে ২৩ জনসহ অজ্ঞাত নামা আরো কয়েকজনকে আসামি করে মিথ্যা মামলা দায়ের করে।

যাদের মধ্যে ১নং আসামি সুজাত সরকার ও তার ভাইসহ ১৫-১৬ জন এখানে ছিলেন না।

সভার কালেকশন ও দাওয়াত খেতে গিয়ে মামলার আসামি হয়ে তিন দিন জেলখানায় ছিল। তারা আরো বলেন একই মৌজায় এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত ২ শিক্ষকে’র দখলে সরকারি হালটের জায়গা রয়েছে কিন্তু সরকার কোনো ব্যবস্থা নেয় না।, এরা খুবই দুষ্ট প্রকৃতির লোক।

এবিষয়ে প্রকৃত ঘটনার সুষ্ঠ তদন্ত করে পূর্বধলা উপজেলা সার্ভেয়ার মোঃ হাদিউল ইসলাম (৪৫), বিশকাকুনী ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) সদস্য মোঃ সেলিম সরকার (৫০), আ. রশিদ, নৈগাঁও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো.শহীদুল্লাহ ওরফে তৌহিদ, সহকারি শিক্ষক হেদায়েত উল্লাহ ওরফে জজ মিয়ার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন।,

আপনার মন্তব্য লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষণ করুন

প্রকাশক ও সম্পাদক সম্পর্কে-

আমি মো. শফিকুল আলম শাহীন। আমি একজন ওয়েব ডেভেলপার ও সাংবাদিক । আমি পূর্বকণ্ঠ অনলাইন প্রকাশনার সম্পাদক ও প্রকাশক। আমি জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে ইতিবাচক। আমি করতে, দেখতে এবং অভিজ্ঞতা করতে পছন্দ করি এমন অনেক কিছু আছে। আমি আইটি সেক্টর নিয়ে বিভিন্ন এক্সপেরিমেন্ট করতে পছন্দ করি। যেমন ওয়েব পেজ তৈরি করা, বিভিন্ন অ্যাপ তৈরি করা, অনলাইন রেডিও স্টেশন তৈরি করা, অনলাইন সংবাদপত্র তৈরি করা ইত্যাদি। আমাদের প্রকাশনা “পূর্বকন্ঠ” স্বাধীনতার চেতনায় একটি নিরপেক্ষ জাতীয় অনলাইন । পাঠক আমাদের সবচেয়ে বড় অনুপ্রেরনা। পূর্বকণ্ঠ কথা বলে বাঙালির আত্মপ্রত্যয়ী আহ্বান ও ত্যাগে অর্জিত স্বাধীনতার। কথা বলে স্বাধীনতার চেতনায় উদ্বুদ্ধ হতে। ছড়িয়ে দিতে এ চেতনা দেশের প্রত্যেক কোণে কোণে। আমরা রাষ্ট্রের আইন কানুন, রীতিনীতির প্রতি শ্রদ্ধাশীল। দেশপ্রেম ও রাষ্ট্রীয় আইন বিরোধী এবং বাঙ্গালীর আবহমান কালের সামাজিক সহনশীলতার বিপক্ষে পূর্বকন্ঠ কখনো সংবাদ প্রকাশ করে না। আমরা সকল ধর্মমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল, কোন ধর্মমত বা তাদের অনুসারীদের অনুভূতিতে আঘাত দিয়ে আমরা কিছু প্রকাশ করি না। আমাদের সকল প্রচেষ্টা পাঠকের সংবাদ চাহিদাকে কেন্দ্র করে। তাই পাঠকের যে কোনো মতামত আমরা সাদরে গ্রহন করব।

ইরাকে সামরিক ঘাঁটিতে বিস্ফোরণ, হতাহত ৯

পূর্বধলায় মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবীতে মানববন্ধন

আপডেট : ০৫:৫২:৪৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

পূর্বধলায় মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবীতে মানববন্ধ
নেত্রকোনার পূর্বধলায় গৃহবধুকে শ্লীলতাহানি, বসতবাড়ি দখল ও মারধরের ঘটনায় দায়ীদের শাস্তি ও ভূমি অফিসের সার্ভেয়ার কতৃর্ক ২৩ জনের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী।

আজ রোববার (১৮ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে বিশকাকুনি ইউনিয়নের নৈগাঁও গ্রামে এ মানবন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।,
আধঘণ্টাব্যাপী অনুষ্ঠিত মানবন্ধনে প্রায় দুই শতাধিক নারী-পুরুষ অংশগ্রহণ করেন।

এসময় বক্তব্য রাখেন, ভুক্তভোগী হোরে মদিনা, মুক্তিযোদ্ধা সন্তান আসমা বেগম, মামলার আসামি মুক্তিযোদ্ধা সন্তান মো. হামিদুল ইসলাম, মো. হাবিবুর রহমান, জাহাঙ্গীর মল্লিক প্রমুখ।

বক্তরা ও ভুক্তভোগীগন বলেন, গত ৮ ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার বিকাল সোয়া চারটার ঘ দিকে হোরে মদিনার স্বামী শাহীন দিনমজুরের কাজে চলে গেলে উপজেলা ভূমি অফিসের সার্ভেয়ার মোঃ হাদিউল ইসলাম স্থানীয় ইউপি সদস্য সেলিম সরকারকে নিয়ে মোটরসাইকেল যুগে উপস্থিত হয়ে কাউকে কোন কিছু জিজ্ঞেস না করে একটি বল ফিতা দিয়ে মাপপামাপি শুরু করেন।

এক পর্যায়ে বসতঘরের মাঝখানে একটি বাঁশের কোটি স্থাপন করে সার্ভেয়ার অন্যান্যদের হুকুম দেয় খুটির বরাবর পশ্চিম পাশের জায়গার ঘর ভেঙে ফেলার জন্য।,

ঘরের বেড়া ভাঙতে গেলে মদিনা ফিরাতে গেলে হাদিউল ইসলাম তাকে ধাক্কা দিয়ে মাটিতে ফেলে দেয় এবং শরীরের কাপড়-চোপড় টেনে খুলে অর্ধ উলঙ্গ করে শ্লীলতাহানির ঘটনা ঘটায়। ঘরের পশ্চিম পাশে টিনের বেড়া ভাঙ্গা শুরু করলে উঠে সেখানে ফেরাতে গেলে ঘাড় ধাক্কা দিয়ে শরীরের নানা স্থানে কিল ঘুসি নীলা ফুলা জখম করে। ঘরের বেড়া ভেঙে ২০ হাজার টাকার ক্ষতি সাধন করে।,

পরবর্তীতে স্থানীয় লোকজন এসে আটক করে জিজ্ঞেস করলে হাদিউল ইসলাম সরকারি সার্ভেয়ার বলে পরিচয় দেয়। ঐদিন রাতে মিথ্যা ঘটনা সাজিয়ে ২৩ জনসহ অজ্ঞাত নামা আরো কয়েকজনকে আসামি করে মিথ্যা মামলা দায়ের করে।

যাদের মধ্যে ১নং আসামি সুজাত সরকার ও তার ভাইসহ ১৫-১৬ জন এখানে ছিলেন না।

সভার কালেকশন ও দাওয়াত খেতে গিয়ে মামলার আসামি হয়ে তিন দিন জেলখানায় ছিল। তারা আরো বলেন একই মৌজায় এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত ২ শিক্ষকে’র দখলে সরকারি হালটের জায়গা রয়েছে কিন্তু সরকার কোনো ব্যবস্থা নেয় না।, এরা খুবই দুষ্ট প্রকৃতির লোক।

এবিষয়ে প্রকৃত ঘটনার সুষ্ঠ তদন্ত করে পূর্বধলা উপজেলা সার্ভেয়ার মোঃ হাদিউল ইসলাম (৪৫), বিশকাকুনী ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) সদস্য মোঃ সেলিম সরকার (৫০), আ. রশিদ, নৈগাঁও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো.শহীদুল্লাহ ওরফে তৌহিদ, সহকারি শিক্ষক হেদায়েত উল্লাহ ওরফে জজ মিয়ার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন।,