নেত্রকোনা ০৮:২৩ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৪ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

নেত্রকোনায় শিল্পী পিয়া বৈশ্যের একক সঙ্গীতসন্ধ্যা অনুষ্ঠিত

বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠীর নেত্রকোনা জেলা সংসদ কার্যালয়ে শুক্রবার সন্ধ্যায় ক্লোজআপ ওয়ান তারকা ও বিটিভির তালিকাভ‚ক্ত শিল্পী পিয়া বৈশ্যের একক সঙ্গীতসন্ধ্যা অনুষ্ঠিত হয়েছে। উদীচীর সঙ্গীত বিভাগ এ সঙ্গীতসন্ধ্যার আয়োজন করে।
অনুষ্ঠানে পিয়া বৈশ্য ‘ও আমার বাংলা মা তোর আকুল করা রূপের সুধায়’ গানটি দিয়ে তার পরিবেশনা শুরু করেন।

এরপর তিনি পর্যায়ক্রমে ১৬টি নজরুলসঙ্গীত, লালনসঙ্গীত, জালালগীতি এবং রাধারমণ দত্ত, শাহ আব্দুল করিম ও জসীম উদ্দিন রচিত লোকসঙ্গীত পরিবেশন করেন। এ সময় পিয়া বৈশ্যকে যন্ত্রসঙ্গীতে সহযোগিতা করেন: দোতারায় সারওয়ার কামাল রবিন, কিবোর্ডে অসিত ঘোষ, তবলায় সুব্রত রায় টিটু, বাঁশিতে মুখলেছুর রহমান, অক্টোপ্যাডে রূপম এবং গীটারে ইমরান আহমেদ।

উদীচীকর্মী মাসুদুর রহমানের সঞ্চালনায় গানের বিরতিতে পিয়া বৈশ্যের সঙ্গীতজীবন নিয়ে সংক্ষিপ্ত আলোচনা করেন: ওস্তাদ নিখিল সরকার, মুক্তিযোদ্ধা হায়দার জাহান চৌধুরী, উদীচীর সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান, কেন্দ্রীয় সদস্য সারওয়ার কামাল রবিন, কবি স্বপন কুমার পাল, রেডক্রিসেন্ট সোসাইটির কার্যকরি সদস্য স্বপন চৌধুরী দিলু, দৈনিক জননেত্র সম্পাদক এম মুখলেছুর রহমান খান ও সাংবাদিক সঞ্জয় সরকার। শুরুতে পিয়া বৈশ্যের সংক্ষিপ্ত জীবনী পাঠ করেন রাজন ভদ্র। রাত ১০টা পর্যন্ত বিপুল সংখ্যক দর্শক অনুষ্ঠানটি উপভোগ করেন।

পিয়া বৈশ্য শৈশবকাল থেকে সঙ্গীত চর্চায় মগ্ন। ওস্তাদ বানেশ^র ভট্টাচার্যের কাছে তার হাতেখড়ি। এরপর ওস্তা নিখিল সরকারের কাছে সাধারণ সঙ্গীত এবং ওস্তাদ গোপাল দত্ত ও সঞ্জীব দে’র কাছে উচ্চাঙ্গ সঙ্গীত শেখেন। এছাড়া ময়মনসিংহ শিল্পকলা একাডেমিতে ক্লাসিক্যাল মিউজিকের ওপর ডিপ্লোমা কোর্স সমাপ্ত করেন। ২০০৫ সালে তিনি এনটিভি প্রযোজিত ‘ক্লোজআপ ওয়ান’ সঙ্গীত প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে শীর্ষ তালিকায় স্থান পান। ২০১২ সালে বাংলাদেশ টেলিভিশনের লোকসঙ্গীত শিল্পী হিসেবে তালিকাভ‚ক্ত হন। ইউটিউবে তার গাওয়া বহু গান রয়েছে।

আপনার মন্তব্য লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষণ করুন

প্রকাশক ও সম্পাদক সম্পর্কে-

শফিকুল আলম শাহীন

আমি একজন ওয়েব ডেভেলপার ও সাংবাদিক। আমি দৈনিক ইত্তেফাক পত্রিকায় পূর্বধলা উপজেলা সংবাদদাতা হিসেবে কর্মরত । সেইসাথে পূর্বকণ্ঠ অনলাইন প্রকাশনার সম্পাদক ও প্রকাশক। আমার বর্তমান ঠিকানা স্টেশন রোড, পূর্বধলা, নেত্রকোনা। আমি জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে ইতিবাচক। আমার ধর্ম ইসলাম। আমি করতে, দেখতে এবং অভিজ্ঞতা করতে পছন্দ করি এমন অনেক কিছু আছে। আমি আইটি সেক্টর নিয়ে বিভিন্ন এক্সপেরিমেন্ট করতে পছন্দ করি। যেমন ওয়েব পেজ তৈরি করা, বিভিন্ন অ্যাপ তৈরি করা, রেডিও স্টেশন তৈরি করা, অনলাইন সংবাদপত্র তৈরি করা ইত্যাদি। প্রয়োজনে: ০১৭১৩৫৭৩৫০২

নেত্রকোনায় শিল্পী পিয়া বৈশ্যের একক সঙ্গীতসন্ধ্যা অনুষ্ঠিত

আপডেট : ০১:৫৭:৫৫ অপরাহ্ন, শনিবার, ৮ ফেব্রুয়ারী ২০২০

বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠীর নেত্রকোনা জেলা সংসদ কার্যালয়ে শুক্রবার সন্ধ্যায় ক্লোজআপ ওয়ান তারকা ও বিটিভির তালিকাভ‚ক্ত শিল্পী পিয়া বৈশ্যের একক সঙ্গীতসন্ধ্যা অনুষ্ঠিত হয়েছে। উদীচীর সঙ্গীত বিভাগ এ সঙ্গীতসন্ধ্যার আয়োজন করে।
অনুষ্ঠানে পিয়া বৈশ্য ‘ও আমার বাংলা মা তোর আকুল করা রূপের সুধায়’ গানটি দিয়ে তার পরিবেশনা শুরু করেন।

এরপর তিনি পর্যায়ক্রমে ১৬টি নজরুলসঙ্গীত, লালনসঙ্গীত, জালালগীতি এবং রাধারমণ দত্ত, শাহ আব্দুল করিম ও জসীম উদ্দিন রচিত লোকসঙ্গীত পরিবেশন করেন। এ সময় পিয়া বৈশ্যকে যন্ত্রসঙ্গীতে সহযোগিতা করেন: দোতারায় সারওয়ার কামাল রবিন, কিবোর্ডে অসিত ঘোষ, তবলায় সুব্রত রায় টিটু, বাঁশিতে মুখলেছুর রহমান, অক্টোপ্যাডে রূপম এবং গীটারে ইমরান আহমেদ।

উদীচীকর্মী মাসুদুর রহমানের সঞ্চালনায় গানের বিরতিতে পিয়া বৈশ্যের সঙ্গীতজীবন নিয়ে সংক্ষিপ্ত আলোচনা করেন: ওস্তাদ নিখিল সরকার, মুক্তিযোদ্ধা হায়দার জাহান চৌধুরী, উদীচীর সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান, কেন্দ্রীয় সদস্য সারওয়ার কামাল রবিন, কবি স্বপন কুমার পাল, রেডক্রিসেন্ট সোসাইটির কার্যকরি সদস্য স্বপন চৌধুরী দিলু, দৈনিক জননেত্র সম্পাদক এম মুখলেছুর রহমান খান ও সাংবাদিক সঞ্জয় সরকার। শুরুতে পিয়া বৈশ্যের সংক্ষিপ্ত জীবনী পাঠ করেন রাজন ভদ্র। রাত ১০টা পর্যন্ত বিপুল সংখ্যক দর্শক অনুষ্ঠানটি উপভোগ করেন।

পিয়া বৈশ্য শৈশবকাল থেকে সঙ্গীত চর্চায় মগ্ন। ওস্তাদ বানেশ^র ভট্টাচার্যের কাছে তার হাতেখড়ি। এরপর ওস্তা নিখিল সরকারের কাছে সাধারণ সঙ্গীত এবং ওস্তাদ গোপাল দত্ত ও সঞ্জীব দে’র কাছে উচ্চাঙ্গ সঙ্গীত শেখেন। এছাড়া ময়মনসিংহ শিল্পকলা একাডেমিতে ক্লাসিক্যাল মিউজিকের ওপর ডিপ্লোমা কোর্স সমাপ্ত করেন। ২০০৫ সালে তিনি এনটিভি প্রযোজিত ‘ক্লোজআপ ওয়ান’ সঙ্গীত প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে শীর্ষ তালিকায় স্থান পান। ২০১২ সালে বাংলাদেশ টেলিভিশনের লোকসঙ্গীত শিল্পী হিসেবে তালিকাভ‚ক্ত হন। ইউটিউবে তার গাওয়া বহু গান রয়েছে।