মঙ্গলবার ২৮শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১৩ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

নারী নির্যাতন ও ধর্ষণ বন্ধে প্রয়োজন কঠোর আইন

 |  আপডেট ১২:২১ পূর্বাহ্ণ | বুধবার, ০৭ অক্টোবর ২০২০ | প্রিন্ট  | 154

নারী নির্যাতন ও ধর্ষণ বন্ধে প্রয়োজন কঠোর আইন

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে বিবস্ত্র করে এক নারীকে নির্যাতনের ঘটনায় দেশের বিভিন্ন স্থানে প্রতিবাদ হয়েছে। এসব প্রতিবাদ সমাবেশে অংশ নিয়েছেন সর্বস্তরের মানুষ। বিক্ষুব্ধরা দেশজুড়ে চলমান নারী নির্যাতন ও ধর্ষণ বন্ধে কঠোর আইন প্রয়োগের দাবি তুলেছেন। নোয়াখালীতে নারী নির্যাতনের ঘটনায় স্থানীয় পুলিশ প্রশাসনের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। এ নিয়ে গণমাধ্যমগুলো বিস্তারিত প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।

নোয়াখালীতে নারী নির্যাতনের ঘটনা মধ্যযুগীয় বর্বরতার কথাকেই মনে করিয়ে দেয়। শুধু নোয়াখালীর একজন নারীই নন, দেশজুড়ে প্রতিদিনই অসংখ্য নারী ও মেয়ে শিশু মধ্যযুগীয় বর্বরতার শিকার হচ্ছে। দেশে ধর্ষণ ও নারী নির্যাতনের ঘটনা আশঙ্কাজনক পর্যায়ে পৌঁছেছে। আইন ও সালিশ কেন্দ্রের (আসক) এক হিসাব অনুযায়ী, চলতি বছরের প্রথম ৯ মাসে দেশে ধর্ষণের শিকার হয়েছেন ৯৭৫ জন নারী ও শিশু। এর মধ্যে গণধর্ষণের শিকার হয়েছেন ২০৮ জন। বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, এ হিসাবের বাইরেও আরও ধর্ষণের ঘটনা ঘটছে। অনেক ছেলে শিশুও ধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে গণমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে জানা যায়।


শিশু থেকে বৃদ্ধা পর্যন্ত সবাই ধর্ষক-নিপীড়কদের শিকারে পরিণত হচ্ছে। ধর্ষণ ও নারী নির্যাতনে ধর্ষক-নিপীড়কদের বর্বর অমানবিক রূপ প্রকাশ পাচ্ছে। ধর্ষক-নিপীড়করা অনেক ক্ষেত্রে তাদের অমানবিক কর্মকাণ্ডের ভিডিওচিত্র ধারণ করে ভিকটিমকে ব্ল্যাকমেইল করছে বা ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দিচ্ছে। তাদের বর্বরতা-অমানবিকতার সীমা খুঁজে পাওয়া কঠিন। ধর্ষক-নিপীড়কদের মনোবৈকল্যের কারণ নিয়ে বিশেষজ্ঞরা অনেক কথাই বলেন। আমরা মনে করি, বিচারহীনতার অপসংস্কৃতির কারণেই মূলত ধর্ষণ-নিপীড়নের অপসংস্কৃতি দিন দিন বিস্তৃত হচ্ছে। কোন মনোবৈকল্যের জন্যই হোক আর ক্ষমতার দম্ভের কারণেই হোক উভয়ক্ষেত্রেই ধর্ষক-নিপীড়করা তখনই বেপরোয়া হয়ে ওঠে যখন তারা জানে যে তাদের অপরাধের বিচার হবে না। নোয়াখালীতে নারী নির্যাতনের ঘটনা জানার পরও স্থানীয় থানা-পুলিশ ব্যবস্থা নেয়নি। এর আগে ফেনীতে নুসরাত হত্যার ক্ষেত্রেও পুলিশকে নির্বিকার ভূমিকা পালন করতে দেখা গেছে। একজন নারী নির্যাতিত হয়েছেন, নির্যাতনের বর্বর ভিডিওচিত্র ভাইরাল হয়ে গেছে আর সংশ্লিষ্ট থানার পুলিশ ন্যূনতম ব্যবস্থাও নেয়নি। তারা অপরাধীকে গ্রেফতারে উদ্যোগ নেয়নি। ভিকটিমের কোন খোঁজ নেয়নি। এই যদি হয় থানা পুলিশের ভূমিকা তা হলে ধর্ষক-নির্যাতকরা তো উৎসাহিতই হবে।

দেশে ধর্ষণ-নিপীড়নের ঘটনা আদালতে পর্যন্ত গড়ালেও বিচার পাওয়া দুরূহ। এমনও অনেক মামলার কথা জানা যায় যা এক দশকেও নিষ্পত্তি হয়নি। ধর্ষণ-নিপীড়নের বিচার চাওয়া ভুক্তভোগী মাত্রই জানেন যে, বিচার পাওয়ার প্রক্রিয়া কতটা পীড়াদায়ক। বিদ্যমান বিচার প্রক্রিয়ায়, ভিকটিমকেই প্রমাণ করতে হয় যে তিনি ধর্ষণ বা নিপীড়নের শিকার হয়েছেন। আমরা এ প্রক্রিয়ার অবসান চাই। আমরা এমন বিচার প্রক্রিয়া চাই যেখানে ভিকটিমকে পদে পদে হয়রানির শিকার হতে হবে না। ধর্ষণের দ্রুত বিচার নিশ্চিত করা জরুরি। প্রয়োজনে বিশেষায়িত আদালতে করা যেতে পারে। ধর্ষণ-নারী নির্যাতন বন্ধে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ভূমিকায় ইতিবাচক পরিবর্তন আনা জরুরি। পুলিশকে উদ্যোগী হয়ে কাজ করতে হবে। নোয়াখালীর ঘটনায় পুলিশের ভূমিকা খতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে হবে।

শেয়ার করুন..

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement
এক ক্লিকে বিভাগের খবর

এ বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০  
ঘোষনা : আমাদের পূর্বকন্ঠ ওয়েবসাইটে প্রবেশ করার জন্য আপনাকে স্বাগতম। আপনার আশপাশে ঘটে যাওয়া খবরা খবর জানাতে আমাদের ফোন করুন-০১৭১৩৫৭৩৫০২ এই নাম্বারে ☎ গুরুত্বপূর্ণ নাম্বার সমূহ : ☎ জরুরী সেবা : ৯৯৯ ☎ নেত্রকোনা ফায়ার স্টেশন: ০১৭৮৯৭৪৪২১২☎ জেলা প্রশাসক ,নেত্রকোনা:০১৩১৮-২৫১৪০১ ☎ পুলিশ সুপার,নেত্রকোনা: ০১৩২০১০৪১০০☎ অতিরিক্ত পুলিশ সুপার, সদর সার্কেল : ০১৩২০১০৪১৪৫ ☎ ইউএনও,পূর্বধলা : ০১৭৯৩৭৬২১০৮☎ ওসি পূর্বধলা : ০১৩২০১০৪৩১৫ ☎ শ্যামগঞ্জ পুলিশ তদন্ত কেন্দ্র : ০১৩২০১০৪৩৩৩ ☎ ওসি শ্যামগঞ্জ হাইওয়ে থানা : ০১৩২০১৮২৮২৬ ☎ উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা, পূর্বধলা: ০১৭০০৭১৭২১২/০৯৫৩২৫৬১০৬ ☎ উপজেলা সমাজসেবা অফিসার, পূর্বধলা : ০১৭১৮৩৮৭৫৮৭/০১৭০৮৪১৫০২২ ☎ উপজেলা মৎস্য অফিসার, পূর্বধলা : ০১৫১৫-৬১৪৯২১ ☎ উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা, পূর্বধলা : ০১৯৯০-৭০৩০২০ ☎ উপজেলা প্রাণি সম্পদ অফিসার, পূর্বধলা : ০১৭১৮-৭২৮২৯৪ ☎ উপজেলা প্রকৌশলী (এলজিইডি) পূর্বধলা :০১৭০৮-১৬১৪৫৭ ☎ উপজেলা আনসার ভিডিপি অফিসার, পূর্বধলা : ০১৯১৪-৯১৯৯৩৮ ☎ উপ-সহকারি প্রকৌশলী, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অফিস, পূর্বধলা : ০১৯১৬-৮২৬৬৬৮ ☎ উপজেলা যুব উন্নয়ন অফিসার, পূর্বধলা : ০১৭১১-৭৮৯৭৯৮ ☎ উপজেলা কৃষি অফিসার, পূর্বধলা : ০১৭১৬-৭৯৮৯৪৬ ☎ উপজেলা শিক্ষা অফিসার, পূর্বধলা : ০১৭১৫-৪৭৪২৯৬ ☎ উপজেলা সমবায় অফিসার, পূর্বধলা : ০১৭১৭-০৪৩৬৩৯ ☎ সম্পাদক পূর্বকন্ঠ ☎ ০১৭১৩৫৭৩৫০২ ☎
মোঃ শফিকুল আলম শাহীন সম্পাদক ও প্রকাশক
পূর্বকণ্ঠ ২০১৬ সালে তথ্য অধিদপ্তরে নিবন্ধনের জন্য আবেদিত।
বার্তা ও সম্পাদকীয় কার্যালয়

স্টেশন রোড, পূর্বধলা, নেত্রকোনা।

হেল্প লাইনঃ +৮৮০৯৬৯৬৭৭৩৫০২

E-mail: info@purbakantho.com