নেত্রকোনা ০৮:২৩ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

টাঙ্গাইলে সাংবাদিকদের ওপর হামলার মূলহোতা ফজল মন্ডল গাজীপুরে গ্রেফতার

টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে সাংবাদিকদের ওপর হামলার মূলহোতা ও জুয়ার আসর পরিচালনাকারী সেই ফজল মন্ডলকে অবশেষে গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ। বুধবার (০৮ জানুয়ারি) মধ্যরাতে তথ্য প্রযুক্তির সাহায্যে গাজীপুরের কোনাবাড়ী এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত ফজল মন্ডল উপজেলার গোবিন্দাসী এলাকার মৃত আব্দুল কাশেমের পুত্র। তিনি গোবিন্দাসী ইউনিয়ন ট্রাক শ্রমিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা। এদিকে টাঙ্গাইলের সদর উপজেলার বাসাখানপুর এলাকা থেকে নিরুৎপল সাহার ছেলে হামলাকারী জুয়াড়ি অমিত সাহাকে গ্রেফতার করেছে টাঙ্গাইল থানা পুলিশ। ভূঞাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মো: রাশিদুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

সাংবাদিকদের উপর হামলার পর থেকেই ফজল মন্ডলকে গ্রেফতারে পুলিশ অভিযান অব্যাহত রেখেছিল। তিনি আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর চোখ এড়াতে বিভিন্ন পন্থায় দেশের বিভিন্ন প্রান্তে পালিয়ে বেড়াচ্ছিল। অবশেষে তথ্য প্রযুক্তির সাহায্য নিয়ে গতকাল রাতে পুলিশের একটি দল তাকে গাজীপুরের কোনাবাড়ী থেকে গ্রেফতারে সক্ষম হন। উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার (০২ জানুয়ারি) টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরের গোবিন্দাসী ঘাট সংলগ্ন কাঁশবন এলাকায় জুয়ার আসরের সচিত্র সংবাদ সংগ্রহে গিয়ে সাংবাদিকদের উপর হামলা চালায় জুয়াড়িরা।

হামলায় ডিবিসি টেলিভিশনের টাঙ্গাইল প্রতিনিধি সোহেল তালুকদার, ক্যামেরা পারসন আশিকুর রহমান, দৈনিক ইত্তেফাকের সাংবাদিক অভিজিৎ ঘোষসহ ৬ জন আহত হয়। এসময় ডিবিসি’র একটি ক্যামেরা ভাঙচুর এবং অপর একটি ক্যামেরা ছিনিয়ে নেয়। এছাড়া ডিবিসি’র বুম (মাইক্রোফোন) ভাঙচুর করা হয়। এ ঘটনায় সেই রাতেই ডিবিসি’র টাঙ্গাইল প্রতিনিধি সোহেল তালুকদার বাদী হয়ে জুয়াড়ি প্রধান ফজল মন্ডলকে প্রধান আসামী করে ৮জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত শতাধিক জুয়াড়ির বিরুদ্ধে ভূঞাপুর থানায় মামলা দায়ের করেছেন। পরে অভিযান চালিয়ে এজাহারভুক্ত ৪ আসামিকে গ্রেফতার করে পুলিশ। কিন্তু ঘটনার পর থেকে ফজল মন্ডল পলাতক ছিলেন। তাকে গ্রেফতারের দাবিতে ভূঞাপুরসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে সাংবাদিকরা কর্মসূচি পালন করে আসছিলেন।

আপনার মন্তব্য লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষণ করুন

প্রকাশক ও সম্পাদক সম্পর্কে-

শফিকুল আলম শাহীন

আমি একজন ওয়েব ডেভেলপার ও সাংবাদিক। আমি দৈনিক ইত্তেফাক পত্রিকায় পূর্বধলা উপজেলা সংবাদদাতা হিসেবে কর্মরত । সেইসাথে পূর্বকণ্ঠ অনলাইন প্রকাশনার সম্পাদক ও প্রকাশক। আমার বর্তমান ঠিকানা স্টেশন রোড, পূর্বধলা, নেত্রকোনা। আমি জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে ইতিবাচক। আমার ধর্ম ইসলাম। আমি করতে, দেখতে এবং অভিজ্ঞতা করতে পছন্দ করি এমন অনেক কিছু আছে। আমি আইটি সেক্টর নিয়ে বিভিন্ন এক্সপেরিমেন্ট করতে পছন্দ করি। যেমন ওয়েব পেজ তৈরি করা, বিভিন্ন অ্যাপ তৈরি করা, রেডিও স্টেশন তৈরি করা, অনলাইন সংবাদপত্র তৈরি করা ইত্যাদি। প্রয়োজনে: ০১৭১৩৫৭৩৫০২

টাঙ্গাইলে সাংবাদিকদের ওপর হামলার মূলহোতা ফজল মন্ডল গাজীপুরে গ্রেফতার

আপডেট : ০৬:২৮:৩০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৯ জানুয়ারী ২০২০

টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে সাংবাদিকদের ওপর হামলার মূলহোতা ও জুয়ার আসর পরিচালনাকারী সেই ফজল মন্ডলকে অবশেষে গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ। বুধবার (০৮ জানুয়ারি) মধ্যরাতে তথ্য প্রযুক্তির সাহায্যে গাজীপুরের কোনাবাড়ী এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত ফজল মন্ডল উপজেলার গোবিন্দাসী এলাকার মৃত আব্দুল কাশেমের পুত্র। তিনি গোবিন্দাসী ইউনিয়ন ট্রাক শ্রমিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা। এদিকে টাঙ্গাইলের সদর উপজেলার বাসাখানপুর এলাকা থেকে নিরুৎপল সাহার ছেলে হামলাকারী জুয়াড়ি অমিত সাহাকে গ্রেফতার করেছে টাঙ্গাইল থানা পুলিশ। ভূঞাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মো: রাশিদুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

সাংবাদিকদের উপর হামলার পর থেকেই ফজল মন্ডলকে গ্রেফতারে পুলিশ অভিযান অব্যাহত রেখেছিল। তিনি আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর চোখ এড়াতে বিভিন্ন পন্থায় দেশের বিভিন্ন প্রান্তে পালিয়ে বেড়াচ্ছিল। অবশেষে তথ্য প্রযুক্তির সাহায্য নিয়ে গতকাল রাতে পুলিশের একটি দল তাকে গাজীপুরের কোনাবাড়ী থেকে গ্রেফতারে সক্ষম হন। উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার (০২ জানুয়ারি) টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরের গোবিন্দাসী ঘাট সংলগ্ন কাঁশবন এলাকায় জুয়ার আসরের সচিত্র সংবাদ সংগ্রহে গিয়ে সাংবাদিকদের উপর হামলা চালায় জুয়াড়িরা।

হামলায় ডিবিসি টেলিভিশনের টাঙ্গাইল প্রতিনিধি সোহেল তালুকদার, ক্যামেরা পারসন আশিকুর রহমান, দৈনিক ইত্তেফাকের সাংবাদিক অভিজিৎ ঘোষসহ ৬ জন আহত হয়। এসময় ডিবিসি’র একটি ক্যামেরা ভাঙচুর এবং অপর একটি ক্যামেরা ছিনিয়ে নেয়। এছাড়া ডিবিসি’র বুম (মাইক্রোফোন) ভাঙচুর করা হয়। এ ঘটনায় সেই রাতেই ডিবিসি’র টাঙ্গাইল প্রতিনিধি সোহেল তালুকদার বাদী হয়ে জুয়াড়ি প্রধান ফজল মন্ডলকে প্রধান আসামী করে ৮জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত শতাধিক জুয়াড়ির বিরুদ্ধে ভূঞাপুর থানায় মামলা দায়ের করেছেন। পরে অভিযান চালিয়ে এজাহারভুক্ত ৪ আসামিকে গ্রেফতার করে পুলিশ। কিন্তু ঘটনার পর থেকে ফজল মন্ডল পলাতক ছিলেন। তাকে গ্রেফতারের দাবিতে ভূঞাপুরসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে সাংবাদিকরা কর্মসূচি পালন করে আসছিলেন।