নেত্রকোনা ০৫:১৯ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ৯ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কুষ্টিয়ায় আন্তর্জাতিক তথ্য অধিকার দিবস পালিত

  • আপডেট : ০৩:১৫:২৬ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯
  • ২৪৫

নজরুল ইসলাম মুকুল, কুষ্টিয়া \ 

কুষ্টিয়া জেলার সকল পর্যায়ে চলমান উন্নয়ন প্রকল্প এবং অফিস কার্যালয়ের তথ্য অবমুক্ত করণের নির্দেশনা দিয়ে জেলা প্রশাসক মো: আসলাম হোসেন বলেন, আজকের বিশে^ তথ্যই শক্তি।

তিনি বলেন আরো, তথ্য জানার অধিকার নাগরিকের আইনগত অধিকার। সুশাসন, স্বচ্ছতা এবং জবাবদিহিতা নিশ্চিতের অন্যতম হাতিয়ারই হলো অবাধ তথ্য প্রবাহ।

বর্তমান সরকার তথ্য অধিকার আইন বাস্তবায়নে নানাবিধ কার্যক্রম উল্লেখ করে বলেন, সরকারি ঘোষিত লক্ষ্যমাত্রা ২০২১ এবং ২০৪১ অর্জন সহ টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করতে হলে তথ্যের অবাধ প্রবাহ তৈরী করতে হবে।

রবিবার ২৯ সেপ্টেম্বর জেলা প্রশাসন কুষ্টিয়া, সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক), টিআইবি এবং ব্রিটিশ কাউন্সিল কুষ্টিয়ার যৌথ উদ্যোগে আন্তর্জাতিক তথ্য অধিকার দিবস উপলক্ষ্যে জেলা প্রশাসক মো: আসলাম হোসেন এর নেতৃত্বে সকাল পনে ১০টায় কুষ্টিয়া কালেক্টরেট চত্বর হতে বর্ণাঢ্য র‌্যালি এবং তথ্য অধিকার দিবস উপলক্ষ্যে আয়োজিত তথ্য মেলার উদ্বোধন এবং সম্মেলন কক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভার সভাপতি ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো: আজাদ জাহান বলেন, তথ্য চাইলে সরকারি বেসরকারি সকল দপ্তর সমূই তথ্য দিতে বাধ্য। আইনের প্রতি সম্মান প্রদর্শন করা সকলের দায়িত্ব। কোন অফিসে তথ্য চেয়ে আবেদনকারীকে কোন প্রকার হয়রানি করা যাবে না। তথ্য না দিতে পারলে সুনির্দিষ্ট কারণ উল্লেখপূর্বক বিধি অনুসারে তা আবেদনকারীকে জানাতে হবে।

সনাক সদস্য মো: রফিকুল আলম টুকু বলেন, তথ্য জানা যেমন নাগরিকের অধিকার তেমনি তথ্যই সুশাসন প্রতিষ্ঠার অন্যতম হাতিয়ার। সুতরাং তথ্য অধিকার আইনের যথাযথ প্রয়োগের মাধ্যমে সুশাসন নিশ্চিত করতে হলে সকলের আন্তরিক সহযোগিতা এবং সদিচ্ছা দরকার।

র‌্যালী এবং আলোচনা সভায় জেলা প্রশাসন এর কর্মকর্তাবৃন্দ, বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি দপ্তরের কর্মকর্তা, শিক্ষক-শিক্ষার্থীবৃন্দ, নানা শ্রেণী পেশার মানুষ, সাংবাদিকবৃন্দ, সনাক, স্বজন, ইয়েস ও ইয়েস ফ্রেন্ডস ও টিআইবি’র কর্মীবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন।

আপনার মন্তব্য লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষণ করুন

প্রকাশক ও সম্পাদক সম্পর্কে-

আমি মো. শফিকুল আলম শাহীন। আমি একজন ওয়েব ডেভেলপার ও সাংবাদিক । আমি পূর্বকণ্ঠ অনলাইন প্রকাশনার সম্পাদক ও প্রকাশক। আমি জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে ইতিবাচক। আমি করতে, দেখতে এবং অভিজ্ঞতা করতে পছন্দ করি এমন অনেক কিছু আছে। আমি আইটি সেক্টর নিয়ে বিভিন্ন এক্সপেরিমেন্ট করতে পছন্দ করি। যেমন ওয়েব পেজ তৈরি করা, বিভিন্ন অ্যাপ তৈরি করা, অনলাইন রেডিও স্টেশন তৈরি করা, অনলাইন সংবাদপত্র তৈরি করা ইত্যাদি। আমাদের প্রকাশনা “পূর্বকন্ঠ” স্বাধীনতার চেতনায় একটি নিরপেক্ষ জাতীয় অনলাইন । পাঠক আমাদের সবচেয়ে বড় অনুপ্রেরনা। পূর্বকণ্ঠ কথা বলে বাঙালির আত্মপ্রত্যয়ী আহ্বান ও ত্যাগে অর্জিত স্বাধীনতার। কথা বলে স্বাধীনতার চেতনায় উদ্বুদ্ধ হতে। ছড়িয়ে দিতে এ চেতনা দেশের প্রত্যেক কোণে কোণে। আমরা রাষ্ট্রের আইন কানুন, রীতিনীতির প্রতি শ্রদ্ধাশীল। দেশপ্রেম ও রাষ্ট্রীয় আইন বিরোধী এবং বাঙ্গালীর আবহমান কালের সামাজিক সহনশীলতার বিপক্ষে পূর্বকন্ঠ কখনো সংবাদ প্রকাশ করে না। আমরা সকল ধর্মমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল, কোন ধর্মমত বা তাদের অনুসারীদের অনুভূতিতে আঘাত দিয়ে আমরা কিছু প্রকাশ করি না। আমাদের সকল প্রচেষ্টা পাঠকের সংবাদ চাহিদাকে কেন্দ্র করে। তাই পাঠকের যে কোনো মতামত আমরা সাদরে গ্রহন করব।

কুষ্টিয়ায় আন্তর্জাতিক তথ্য অধিকার দিবস পালিত

আপডেট : ০৩:১৫:২৬ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯

নজরুল ইসলাম মুকুল, কুষ্টিয়া \ 

কুষ্টিয়া জেলার সকল পর্যায়ে চলমান উন্নয়ন প্রকল্প এবং অফিস কার্যালয়ের তথ্য অবমুক্ত করণের নির্দেশনা দিয়ে জেলা প্রশাসক মো: আসলাম হোসেন বলেন, আজকের বিশে^ তথ্যই শক্তি।

তিনি বলেন আরো, তথ্য জানার অধিকার নাগরিকের আইনগত অধিকার। সুশাসন, স্বচ্ছতা এবং জবাবদিহিতা নিশ্চিতের অন্যতম হাতিয়ারই হলো অবাধ তথ্য প্রবাহ।

বর্তমান সরকার তথ্য অধিকার আইন বাস্তবায়নে নানাবিধ কার্যক্রম উল্লেখ করে বলেন, সরকারি ঘোষিত লক্ষ্যমাত্রা ২০২১ এবং ২০৪১ অর্জন সহ টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করতে হলে তথ্যের অবাধ প্রবাহ তৈরী করতে হবে।

রবিবার ২৯ সেপ্টেম্বর জেলা প্রশাসন কুষ্টিয়া, সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক), টিআইবি এবং ব্রিটিশ কাউন্সিল কুষ্টিয়ার যৌথ উদ্যোগে আন্তর্জাতিক তথ্য অধিকার দিবস উপলক্ষ্যে জেলা প্রশাসক মো: আসলাম হোসেন এর নেতৃত্বে সকাল পনে ১০টায় কুষ্টিয়া কালেক্টরেট চত্বর হতে বর্ণাঢ্য র‌্যালি এবং তথ্য অধিকার দিবস উপলক্ষ্যে আয়োজিত তথ্য মেলার উদ্বোধন এবং সম্মেলন কক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভার সভাপতি ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো: আজাদ জাহান বলেন, তথ্য চাইলে সরকারি বেসরকারি সকল দপ্তর সমূই তথ্য দিতে বাধ্য। আইনের প্রতি সম্মান প্রদর্শন করা সকলের দায়িত্ব। কোন অফিসে তথ্য চেয়ে আবেদনকারীকে কোন প্রকার হয়রানি করা যাবে না। তথ্য না দিতে পারলে সুনির্দিষ্ট কারণ উল্লেখপূর্বক বিধি অনুসারে তা আবেদনকারীকে জানাতে হবে।

সনাক সদস্য মো: রফিকুল আলম টুকু বলেন, তথ্য জানা যেমন নাগরিকের অধিকার তেমনি তথ্যই সুশাসন প্রতিষ্ঠার অন্যতম হাতিয়ার। সুতরাং তথ্য অধিকার আইনের যথাযথ প্রয়োগের মাধ্যমে সুশাসন নিশ্চিত করতে হলে সকলের আন্তরিক সহযোগিতা এবং সদিচ্ছা দরকার।

র‌্যালী এবং আলোচনা সভায় জেলা প্রশাসন এর কর্মকর্তাবৃন্দ, বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি দপ্তরের কর্মকর্তা, শিক্ষক-শিক্ষার্থীবৃন্দ, নানা শ্রেণী পেশার মানুষ, সাংবাদিকবৃন্দ, সনাক, স্বজন, ইয়েস ও ইয়েস ফ্রেন্ডস ও টিআইবি’র কর্মীবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন।