শনিবার ১৩ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৩০শে চৈত্র, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

কাওরাইদ স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রের বেহাল দশা

 |  আপডেট ৪:৫৮ অপরাহ্ণ | শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | প্রিন্ট  | 285

কাওরাইদ স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রের বেহাল দশা

সামসুল হক জুৃয়েল, গাজীপুর প্রতিনিধিঃ

গাজীপুরের শ্রীপুরের কাওরাইদ স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রটি বর্তমানে জনবল সংকট আর অব্যবস্থাপনার কারণে বেহাল অবস্থা হাসপাতালটির। ডাক্তার নিয়োগ থাকলেও কোন কর্মকর্তা কর্মচারী এখানে আসে না। এতে ব্যহত হচ্ছে গর্ভবতী মায়েদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা’সহ গ্রামীণ শিশু ও নারীদের চিকিৎসা সেবা কার্যক্রম । ফলে চরম সংকট আকার ধারণ করেছে।


শ্রীপুর উপজেলার কাওরাইদে নির্মাণ করা হয় ‘ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্র’। এর কিছুদিন পরেই কর্মকর্তা-কর্মচারীরা বদলী হয়ে যাওয়ায় জনবল শূণ্য হয়ে পড়ে স্বাস্থ্য কেন্দ্রটি। বর্তমানে স্বাস্থ্য কেন্দ্রে শুধুমাত্র পরিদর্শক ছাড়া আর কেউ আসেন না।তিনিও মাত্র ঘণ্টাখানেক সময় থেকে আবার তালা দিয়ে চলে যান। ফলে চরম ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে আশপাশ ও
এবং দূরদূরান্ত থেকে চিকিৎসা নিতে আসা লোকজন।

এ বিষয়ে অফিস সহায়ক আনিছুর রহমান কথা গুলো এরিয়ে গেলেও পরে বলেন, আমি এখানে পিওনের কাজ করি,এর বেশি কিছু বলতে পারবোনা। আমার উপরের কর্মকর্তা রয়েছে তারা ভালো বলতে পারবে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়,কাওরাইদ স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রের পরিত্যক্ত ভবনের ভিতরে গরু,ছাগলের বসবাস,রুমের ভিতরে লাকরী আর পাতার বস্তা দিয়ে ভরে রেখেছে এলাকার লোকজন। স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রের সকল আসবাপত্র ভেঙে অচল অবস্থায় রয়েছে ।

স্থানীয়রা জানান, দীর্ঘ দিন যাবৎ এই অবস্থায়। আছে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রটি। সন্ধ্যা হলেই স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রের ঘরের ভিতরে চলে রাতভর মাদক সেবনকারিদের আড্ডা। মাদক বিক্রি থেকে শুরু করে নানা অপকর্ম হয় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রের ভিতরে। কেও কিছু বলার সাহস পায়না। সবাই ওদেরকে ভয় পায়। তবে প্রশাসনের লোক যদি ব্যবস্থা নিতো তাহলে মাদক সেবিদের উৎপাত কমে যেত। আমরাও শান্তিতে বসবাস করতে পারতাম।

ডাক্তার ফজলুল হক বলেন,আমি কাজ করি শ্রীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে,কাওরাইদ স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রের ডাক্তার ছিল টাঙ্গাইলের,তিনি অসুস্থ থাকার কারনে আসতে পারছেনা। কিন্তু স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রের ভিতরে রাতে জুয়া,ইয়াবা,গাজাসহ সকল ধরনের অপরাধমুলক কর্মকান্ড হয় তা জানা ছিল না।

শ্রীপুর উপজেলার স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা:ময়নুল হক জানান,উর্ধতন কর্মকর্তার সাথে কথা বলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement
এক ক্লিকে বিভাগের খবর
মোঃ শফিকুল আলম শাহীন প্রকাশক ও সম্পাদক
বার্তা ও সম্পাদকীয় কার্যালয়

স্টেশন রোড, পূর্বধলা, নেত্রকোনা।

হেল্প লাইনঃ ০১৭১৩৫৭৩৫০২

E-mail: info@purbakantho.com