নেত্রকোনা ০৪:৩২ অপরাহ্ন, সোমবার, ০৪ মার্চ ২০২৪, ২১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

কমলগঞ্জে পিঠা উৎসব সম্পন্ন

বাঙালির খাদ্য সংস্কৃতিতে পিঠা অবিচ্ছেদ্য একটি অংশ। শীতকাল এলেই পিঠা উৎসবে মাতোয়ারা হয় দেশবাসী। এই ঋতুটি যেনো পিঠা খাওয়ার উপযুক্ত সময়। এরই ধারাবাহিকতায় মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার আবহমান বাংলার ঐতিহ্য ও বাঙালি সংস্কৃতির ঐতিহ্যবাহী পিঠা উৎসব-২০২০ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শনিবার (১৮ জানুয়ারি) সকাল ১০ টা থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত প্রথমবারের মতো পিঠা উৎসবের আয়োজন করে কমলগঞ্জ পিঠা উৎসব উদযাপন পরিষদ। সন্ধ্যার পর অনুষ্ঠিত হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বীরমুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক রফিকুর রহমান। বিশেষ অতিথিবৃন্দের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, মৌলভীবাজার জেলা পরিষদ সদস্য অধ্যক্ষ হেলাল উদ্দিন, পৌর মেয়র জুয়েল আহমদ, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান বিলকিস বেগম, অফিসার ইনচার্জ আরিফুর রহমান, লেখক আহমদ সিরাজ, কাউন্সিলর রাসেল মতলবি তরফদার,রহিমপুর ইউপি আওয়ামীলীগ সভাপতি জুনেল আহমদ তরফদার, সালাহউদ্দীন, গোলাম রাব্বানী তৈমুর  প্রমুখ।

পিঠা উৎসব উদযাপন পরিষদের আহ্বায়ক সাজিদুল রহমান সাজু জানান, আবহমান বাংলার ঐতিহ্য ও সংস্কৃতিকে লালন করার জন্য এবং বাংলাদেশের অন্যান্য অঞ্চলে নানা রকমের যে সকল মজাদার পিঠা তৈরি হয়, এবং কমলগঞ্জের ঐতিহ্যকে যাতে সবাই লালন করতে পারে সেজন্যই প্রথমবারের মতো পিঠা উৎসবের আয়োজন করা হয়েছে।

পিঠা উৎসবে মোট ৪৫টি স্টল বসে। সাজসজ্জা এবং আইটেম এর দিক থেকে বাছাই করে তিনটি স্টলকে পুরষ্কৃত করা হয়।

আপনার মন্তব্য লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষণ করুন

প্রকাশক ও সম্পাদক সম্পর্কে-

শফিকুল আলম শাহীন

আমি একজন ওয়েব ডেভেলপার ও সাংবাদিক। আমি দৈনিক ইত্তেফাক পত্রিকায় পূর্বধলা উপজেলা সংবাদদাতা হিসেবে কর্মরত । সেইসাথে পূর্বকণ্ঠ অনলাইন প্রকাশনার সম্পাদক ও প্রকাশক। আমার বর্তমান ঠিকানা স্টেশন রোড, পূর্বধলা, নেত্রকোনা। আমি জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে ইতিবাচক। আমার ধর্ম ইসলাম। আমি করতে, দেখতে এবং অভিজ্ঞতা করতে পছন্দ করি এমন অনেক কিছু আছে। আমি আইটি সেক্টর নিয়ে বিভিন্ন এক্সপেরিমেন্ট করতে পছন্দ করি। যেমন ওয়েব পেজ তৈরি করা, বিভিন্ন অ্যাপ তৈরি করা, রেডিও স্টেশন তৈরি করা, অনলাইন সংবাদপত্র তৈরি করা ইত্যাদি। প্রয়োজনে: ০১৭১৩৫৭৩৫০২
জনপ্রিয়

কমলগঞ্জে পিঠা উৎসব সম্পন্ন

আপডেট : ০৮:১২:৪২ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২০

বাঙালির খাদ্য সংস্কৃতিতে পিঠা অবিচ্ছেদ্য একটি অংশ। শীতকাল এলেই পিঠা উৎসবে মাতোয়ারা হয় দেশবাসী। এই ঋতুটি যেনো পিঠা খাওয়ার উপযুক্ত সময়। এরই ধারাবাহিকতায় মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার আবহমান বাংলার ঐতিহ্য ও বাঙালি সংস্কৃতির ঐতিহ্যবাহী পিঠা উৎসব-২০২০ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শনিবার (১৮ জানুয়ারি) সকাল ১০ টা থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত প্রথমবারের মতো পিঠা উৎসবের আয়োজন করে কমলগঞ্জ পিঠা উৎসব উদযাপন পরিষদ। সন্ধ্যার পর অনুষ্ঠিত হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বীরমুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক রফিকুর রহমান। বিশেষ অতিথিবৃন্দের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, মৌলভীবাজার জেলা পরিষদ সদস্য অধ্যক্ষ হেলাল উদ্দিন, পৌর মেয়র জুয়েল আহমদ, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান বিলকিস বেগম, অফিসার ইনচার্জ আরিফুর রহমান, লেখক আহমদ সিরাজ, কাউন্সিলর রাসেল মতলবি তরফদার,রহিমপুর ইউপি আওয়ামীলীগ সভাপতি জুনেল আহমদ তরফদার, সালাহউদ্দীন, গোলাম রাব্বানী তৈমুর  প্রমুখ।

পিঠা উৎসব উদযাপন পরিষদের আহ্বায়ক সাজিদুল রহমান সাজু জানান, আবহমান বাংলার ঐতিহ্য ও সংস্কৃতিকে লালন করার জন্য এবং বাংলাদেশের অন্যান্য অঞ্চলে নানা রকমের যে সকল মজাদার পিঠা তৈরি হয়, এবং কমলগঞ্জের ঐতিহ্যকে যাতে সবাই লালন করতে পারে সেজন্যই প্রথমবারের মতো পিঠা উৎসবের আয়োজন করা হয়েছে।

পিঠা উৎসবে মোট ৪৫টি স্টল বসে। সাজসজ্জা এবং আইটেম এর দিক থেকে বাছাই করে তিনটি স্টলকে পুরষ্কৃত করা হয়।